Ami Bangladeshi

Ami Bangladeshi

Ami Bangladeshi

আর কত দিন? কত কাল?? কত যুগ???

রাজনৈতিক মাফিয়া চক্র বাংলাদেশের জন্যে কোন মিথ নয়, এ এক কঠিন বাস্তবতা। এমন একটা বাস্তবতার যাঁতাকলে নিষ্পেষিত হচ্ছে আমাদের বেঁচে থাকা। ৩৯টা বছর ধরে আমরা অসহায়ের মত দেখছি বাংলাদেশকে লুটছে একদল লুটেরা। পরিবারের নামে, পিতার নামে, ঘোষকের নামে, নেতা-নেত্রীর নামে ১৭ কোটি মানুষকে শৃঙ্খলিত করা হয়েছে লুটপাটতন্ত্রে। ছাত্র, শিক্ষক, আমলা, বিচারক, উকিল, বুদ্ধিজীবী, ডাক্তার, ইঞ্জিনিয়ার সহ সমাজের শিক্ষিত অংশের সামনে উচ্ছিষ্ট বিছিয়ে তাদের ঠেলে দেয়া হচ্ছে পঙ্কিলতার গভীরে। আর এই উচ্ছিষ্টের আড়ালে চলছে নজিরবিহীন হরিলুট। লুটপাটের আধিপত্য নিয়ে দুই পরিবারের লড়াইকে বলা হচ্ছে রাজনীতি, আর এ রাজনীতির গ্যাঁড়াকলে জনগণকে বানানো হচ্ছে দলের, দল হয়ে যাচ্ছে নেত্রীর, দেশ হয়ে যাচ্ছে পরিবারের। ১ টাকায় কয়েক শ কোটি টাকার সম্পদ হাতড়ানোর অসুস্থ প্রতিযোগিতা হতে ঈদকে পর্যন্ত রেহাই দেয়া হল না। ক্ষমতাসীন দল সূক্ষ্ম হিসাব কষেই উচ্ছেদের দিন হিসাবে ঈদকে বেছে নিয়েছিল। তাদের জানা ছিল উচ্ছেদের জবাব হিসাবে বিরোধী দলকে হরতাল ডাকতেই হবে। আর এ হরতাল ঘরমুখো লাখ লাখ মানুষের জন্যে বয়ে সীমাহীন দুর্ভোগ। এমনটাই আমাদের রাজনৈতিক সমীকরণ। এসব সমীকরণের ঘোলা পানিতে ক্ষমতা নামের সোনার মাছ শিকার করে নেত্রীরা নিজে এবং পরিবারের জন্যে নিশ্চিত করেছেন হাজার বছরের নিশ্চয়তা।

প্রশ্ন হচ্ছে, আর কত? আর কত মূল্য দিতে হবে শেখ মুজিব আর জেনারেল জিয়াকে মূল্যায়নের? জাতির বুকে চেপে বসা নেত্রী নামের এসব মাফিয়াচক্রদের আর কতকাল আমাদের লালন করতে হবে? ১ টাকায় কয়েকশ কোটি টাকার গণভবন আর সেনাভবন দিয়েও যদি পরিত্রাণ পাওয়া যায় এসব আবর্জনা হতে আমাদের বোধহয় উচিৎ হবে তা মেনে নেয়া। যে ভাষায় আমাদের রাজনীতি কথা বলছে এ ভাষা একবিংশ শতাব্দীর ভাষা হতে পারে না, এ পাথর যুগের ভাষা যা দিয়ে মানুষ টিকে থাকার লড়াই করত।

আমরা বোধহয় ভুলে গেছি রাজনীতির মূল উদ্দেশ্য হল দেশের অর্থনৈতিক বুনিয়াদ সুসংহত করে তাতে আইনের শাসন নিশ্চিত করা, স্বাভাবিক জন্ম-মৃত্যুর অধিকার ফিরিয়ে দেয়া। হাসিনা-খালেদার রাজনীতি কি এসব বাধ্যবাধকতা হতে মুক্ত? শেখ মুজিব আর জেনারেল জিয়াকে সন্মান আর ভালবাসার মূল্য কি জাতিকে এভাবেই যুগ যুগ ধরে পরিশোধ করতে হবে?

Comments

আর কত?

রাজনৈতিক মাফিয়া চক্র বাংলাদেশের জন্যে কোন মিথ নয়, এ এক কঠিন বাস্তবতা। এমন একটা বাস্তবতার যাঁতাকলে নিষ্পেষিত হচ্ছে আমাদের বেঁচে থাকা। ৩৯টা বছর ধরে আমরা অসহায়ের মত দেখছি বাংলাদেশকে লুটছে একদল লুটেরা। পরিবারের নামে, পিতার নামে, ঘোষকের নামে, নেতা-নেত্রীর নামে ১৭ কোটি মানুষকে শৃঙ্খলিত করা হয়েছে লুটপাটতন্ত্রে। ছাত্র, শিক্ষক, আমলা, বিচারক, উকিল, বুদ্ধিজীবী, ডাক্তার, ইঞ্জিনিয়ার সহ সমাজের শিক্ষিত অংশের সামনে উচ্ছিষ্ট বিছিয়ে তাদের ঠেলে দেয়া হচ্ছে পঙ্কিলতার গভীরে। আর এই উচ্ছিষ্টের আড়ালে চলছে নজিরবিহীন হরিলুট। লুটপাটের আধিপত্য নিয়ে দুই পরিবারের লড়াইকে বলা হচ্ছে রাজনীতি, আর এ রাজনীতির গ্যাঁড়াকলে জনগণকে বানানো হচ্ছে দলের, দল হয়ে যাচ্ছে নেত্রীর, দেশ হয়ে যাচ্ছে পরিবারের। শুধু একদিনের পরিসংখ্যান ঘাটলে কিছুটা হলেও ধারণা পাওয়া যাবে সভ্যতার কোন গলিতে আমাদের বাসঃ

নূর মোহাম্মদের দুর্নীতির অনুসন্ধানে মাঠে দুদক
- সাবেক আইজিপি নূর মোহাম্মদের বিরুদ্ধে প্রায় ৩৫০ কোটি টাকার দুর্নীতির প্রাথমিক সত্যতা পেয়েছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। প্রাথমিক অনুসন্ধান শেষে বিষয়টি নিয়ে চূড়ান্ত অনুসন্ধান শুরু করেছে দুদক।

- নবীগঞ্জে নির্বাচনী সহিংসতায় যুবদল কর্মী খুন

- সাংবাদিক দম্পতি খুন, অতিথিবেশী ঘাতকদের খুঁজছে পুলিশ ও গোয়েন্দারা

- হবিগঞ্জ ও পার্বতীপুরে নির্বাচনোত্তর সংঘর্ষে নিহত ১ আহত ৯

- বেপরোয়া বাসের ধাক্কায় প্রাণ গেল কলেজছাত্রের

- বগুড়ায় স্কুলছাত্রীকে হত্যাচেষ্টার অভিযোগ এক যুবক আটক

- অন্তঃসত্ত্বা গৃহবধূকে দেয়াল চাপা দিয়ে হত্যা!

- দুই মেয়ে থানায় জিডি করেছেন

বাবা-মাকে হত্যার পর জামিনে ছাড়া পেয়ে খুনিরা এখন মেয়েদের হুমকি দিচ্ছে। রাজধানীর গুলশানে ব্যবসায়ী সাদিকুর রহমান (৫৫) ও তাঁর স্ত্রী রোমানা নার্গিসের হত্যাকারী রুবেল ও তার বন্ধু মিথুন চন্দ্র জামিনে গত বৃহস্পতিবার ছাড়া পেয়েছে। ছোট মেয়ের সঙ্গে বিয়ে দিতে রাজি না হওয়ায় গত ২৪ মার্চ রুবেল ওই দম্পতিকে গুলি করে হত্যা করে। ছাড়া পেয়ে তারা ওই দম্পতির মেয়েদের বিভিন্নভাবে হুমকি দিচ্ছে।

- সাভার ও আশুলিয়ায় দুজনকে হত্যা

- বুড়িগঙ্গা থেকে উদ্ধার হওয়া লাশের পরিচয় মিলেছে

- রামপুরায় নিজ বাড়ির সামনে এক ব্যক্তি গুলিতে নিহত

- সোনারগাঁয়ে প্রবাসীর বাড়িতে ডাকাতি

- চুরির ১৫ দিন পর শিশু সোহানের লাশ উদ্ধার

- চালককে হত্যা করে মাইক্রোবাস ছিনতাই

- কুলাউড়ায় ব্যবসায়ীর চার লাখ টাকা লুটের অভিযোগ

দেশ শাসনের একদিনের খতিয়ান এসব। এবং এ শাসন চলছে গণতন্ত্রের নামে, মুক্তিযুদ্ধের চেতনার নামে, জাতির পিতার নামে, স্বাধীনতার ঘোষকের নামে। বলা হচ্ছে এমনটাই না-কি আমাদের রাজনৈতিক সমীকরণ। এবং এসব সমীকরণের ঘোলা পানিতে ক্ষমতা নামের সোনার মাছ শিকার করে নেত্রীরা নিজে এবং পরিবারের জন্যে নিশ্চিত করেছেন হাজার বছরের নিশ্চয়তা।

প্রশ্ন হচ্ছে, আর কত? আর কত মূল্য দিতে হবে শেখ মুজিব আর জেনারেল জিয়াকে মূল্যায়নের? জাতির বুকে চেপে বসা নেত্রী নামের এসব মাফিয়াচক্রদের আর কতকাল আমাদের লালন করতে হবে? ১ টাকায় কয়েকশ কোটি টাকার গণভবন আর সেনাভবন দিয়েও যদি পরিত্রাণ পাওয়া যায় এসব আবর্জনা হতে আমাদের বোধহয় উচিৎ হবে তা মেনে নেয়া। যে ভাষায় আমাদের রাজনীতি কথা বলছে এ ভাষা একবিংশ শতাব্দীর ভাষা হতে পারে না, এ পাথর যুগের ভাষা যা দিয়ে মানুষ টিকে থাকার লড়াই করত।

রাজনীতির মূল উদ্দেশ্য স্বাভাবিক জন্ম-মৃত্যু নিশ্চিত পূর্বক দেশের অর্থনৈতিক ভিত্তি সুসংহত করে আইনের শাসন নিশ্চিত করা, এ সত্যটা জাতির মগজ হতে সুকৌশলে কেড়ে নিয়ে সেখানে বসিয়ে দেয়া হয়েছে পিতা, ঘোষক, মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষ, বিপক্ষ আর বিচারের বীজ। সে বীজ হতে অঙ্কুরিত হচ্ছে এমন এক প্রজন্ম যা আগামী ১০০০ বছর দুই পরিবারের সেবাদাস হয়ে কাজ করার জন্যে দাঁড়িয়ে আছে এক পায়ে।

Post new comment

  • Allowed HTML tags: <a> <em> <strong> <cite> <code><b><p><h1><h2><h3><ul> <ol> <li> <dl> <dt> <dd><img><object><param><embed>
  • Web page addresses and e-mail addresses turn into links automatically.
  • Lines and paragraphs break automatically.

More information about formatting options

Image CAPTCHA
Enter the characters shown in the image.
Write in Bangla