Ami Bangladeshi

Ami Bangladeshi

Ami Bangladeshi

ওপেন এয়ার যৌননিপীড়ন...

Bangla New Year
কোন ব্লগেই খুব একটা উচ্চবাচ্য হয়নি এ নিয়ে। মিডিয়াও খুব একটা গুরুত্ব দেয়নি ব্যাপারটাকে। খুব স্বাভাবিক ভাবে নিয়েছে আমাদের শিক্ষিত সমাজও। বর্ষবরণ উপলক্ষে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে আয়োজিত কনসার্টে ঘটে যাওয়া নিকৃষ্টতম ঘটনার কিছু কিছু বিবরণ বের হচ্ছে স্থানীয় পত্র-পত্রিকায়। মুক্তবান নামে একটি সাংস্কৃতিক সংগঠন রাজু স্মৃতি ভাস্কর্যের সামনে বৈশাখী কনসার্টের আয়োজন করেছিল। বহুজাতিক কোম্পানীর স্পনসরে আয়োজিত এ কনসার্টের মালিক ছিলেন কবি জসিমুদ্দিন হলের ছাত্রলীগের সভাপতি আবদুর রহমান জীবন। খবরে প্রকাশ কনসার্ট শুরুর আগেই লোকে লোকারণ্য হয়ে যায় ঐ এলাকা। ওপেন এয়ার কনসার্টের পাশাপাশি একই সাথে শুরু হয় ওপেন এয়ার পশুত্ব। ঘটনার সূত্রপাত বিকাল ৪টার দিকে। মিলণ চত্বরের সামনে কয়েকজন তরুণ দলবদ্ধভাবে গায়ে হাত দেয় এক তরুণীর। অবস্থা বেগতিক দেখে ওখানে অবস্থানরত তরুণীর দল দ্রুত সড়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। বখাটেরাও পিছু নেয় তাদের। ইতিমধ্যে এ দলে যোগ দেয় আরও শতাধিক বখাটে। শুরু হয় গণ নিপীড়ন। পৈশাচিক উন্মত্ততায় ঝাপিয়ে পড়ে ছাত্রীদের উপর। কেবল এলোপাতাড়ি গায়ে হাত অথবা স্পর্শকাতর জায়গার খামছে ধরার মধ্যেই সীমাবদ্ধ থাকেনি মধ্যযুগীয় বর্বরতা, খুব তাড়াতাড়ি তা রূপান্তরিত হয় শাড়ি নিয়ে টানাটানিতে। অনেকে গা হতে শাড়ি খুলে তার উপর নাচতে শুরু করে দেয়, ব্লাউজের সেফিটিপিন খুলে অনেকে জড়িয়ে পরে গন টানাটানিতে। কনসার্টে জমায়েত বাকি দর্শকদের অনেকেই উপভোগ করতে থাকে এই পশুত্ব। সূর্য ডোবার পর উৎসবে রূপান্তরিত হয় কথিত সর্বোচ্চ বিদ্যাপীঠের এহেন কলঙ্কিত অধ্যায়।

খবরে প্রকাশ, ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের অংগ সংগঠন ছাত্রলীগের মধ্য সারির কর্মীরা আয়োজন করেছিল এই ওপেন এয়ার যৌননিপীড়ন অনুষ্ঠান। লাঞ্চিত তরুণীদের প্রায় সবাই ছিল বহিরাগত এবং রাজনীতির ঋতুস্রাবে বেড়ে উঠা এসব পঙ্গপালের দল বেছে বেছে শিকারে পরিণত করেছিল কনসার্ট দেখতে আসা অতিথি তরুণীদের।

জাতি হিসাবে আজ আমরা ঐক্যবদ্ধ ইতিহাসের ফাক ফাঁকফোকরগুলো আটকানোর জন্যে। ভবিষ্যৎ প্রজন্মের কাছে এমনটাই না-কি আমাদের দায়বদ্ধতা। পাঠক, ভাল করে চিনে নিন আমাদের ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে।

Comments

আল্লাহ সকলকে হেদায়াত করুন।

আল্লাহ সকলকে হেদায়াত করুন।

খুবই ভালো ১টা খাবর

দেশটা কোন দুকে যাচ্ছে ? দেশের মানুষের বিবেক বলতে কি আর কিছু নাই ?
এই বিবেকহীন মানুষগুলো আর কত দিন বাংলাদেশের নারী দের নিয়ে এই পৈচাশীক খেলায় মেতে থাকবে ? কত দিন ধরষীত হবে আমাদের দিবেক ?

গৌরনদীতে বৈশাখী কনসার্টের নামে মাতলামি ও বেহায়াপনা

শুক্রবার, ১৬ এপ্রিল ২০১০

নববর্ষ উপলক্ষে গৌরনদী উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ শাহ আলম খানের সৌজন্যে গৌরনদী গার্লস হাইস্কুল এন্ড কলেজ মাঠে গত বুধবার রাতে এক কনসার্টের আয়োজন করা হয়। কনসার্টের পুর্ব থেকেই তারকা শিল্পিরা গান পরিবেশন করবেন বলে মাইকিং করা হয়। কিন্তু কনসার্ট না হয়ে সে খানে রাতভর চলে অশ্লিল ও মদ্য পায়িদের বেহায়াপনা ।
কনসার্টে আগত দর্শকরা অভিযোগ করেন, তারকা শিল্পিদের নামে মাইকিং করে কনসার্টের আয়োজন করা হয়। গৌরনদী গার্লস স্কুল এন্ড কলেজের মাঠ ও উপজেলা পরিষদের সড়কটি আলোক সজ্জায় সজ্জিত করা হয়। সন্ধা শুরু হতে না হতেই নারী পুরুষ কিশোর, যুবক, যুবতীসহ হাজার হাজার দর্শক সমাগম ঘটে। কিন্তু কনসার্টের শিল্পিরা ছিল অনুপস্থিত। পরে উত্তেজিত দর্শকদের নির্বিত করতে বাজানো হয় তারকা শিল্পিদের সিডি। এক পর্যায়ে গভীর রাতে মঞ্চে আসে নৃত্য শিল্পিরা। মঞ্চে যখন নৃত্য চলে তখন সাজ ঘরের মধ্যে একাধিক ব্যক্তি মদ্য পান করে বে-সামাল হয়ে পড়ে, চলে বেহায়াপনা। রাগান্মিত দর্শকরা বাড়ি ফিরে যাবার সময় অনেকেই বলতে শোনা যায়, নববর্ষের দিনে তারকা শিল্পিদের নামে প্রচারনা চালিয়ে দর্শকদের সাথে প্রতারনা করা সমচিন হয়নি। তা ছাড়া মদ্য পান করে যে বেহায়াপনা করেছে তা ছিল নজির বিহিন। উপজেলা চেয়ারম্যানের সৌজন্যে কনসার্টের নামে মাতলামি ও বেহায়াপনার বিষয়টি গতকাল বৃহস্পতিবার গৌরনদীর টক অফদা টাউনে পরিনত হয়।

Gournadi.com

ধন্যবাদ আপনাকে...

এ মহামারী...এ হতে পরিত্রাণ নেই...

আওয়ামী জঙ্গিদের কাছ থেকে আর কি আশা করতে পারেন

আওয়ামী জঙ্গিদের কাছ থেকে আর কি আশা করতে পারেন। তারা ১৯৭১ সাল থেকে শেখ কামাল দ্বারা প্রশিক্ষিত। আওয়ামী জঙ্গিবাদ বাংলাদেশের জন্য এক ক্যান্সার স্বরূপ।

ঢাবিতেও বখাটেদের হাতে লাঞ্ছিত হল ১৫ তরুণী

বাংলা নববর্ষ অনুষ্ঠানে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে বখাটেদের হাতে অন্তত ১৫ তরুণী লাঞ্ছিত হয়েছে। টিএসসিতে তরুণীর কামিজ ছিঁড়ে ও ওড়না ছিনিয়ে নিয়ে উল্লাস করেছে বখাটেরা। তবে লাঞ্ছিত তরুণীদের কেউ লিখিত অভিযোগ না করায় কাউকে আটক করা সম্ভব হয়নি। রাজু ভাস্কর্যের সামনের কনসার্টে সবচেয়ে বেশি তরুণী লাঞ্ছনার শিকার হয়। সোহরাওয়ার্দী গেইট, বসুনিয়া গেইট, ডাচ, উদয়ন স্কুলের সামনেও তরুণী লাঞ্ছিত হয়। গত কয়েকদিন বখাটেদের উৎপাতে ঘটে যাওয়া মর্মান্তিক ঘটনাগুলোর দাগ মুছতে না মুছতেই এ লাঞ্ছনার ঘটনা ঘটে।

পুলিশের রমনা জোনের এডিসি নূরুল ইসলাম বলেন, কনসার্ট চলাকালে প্রচণ্ড ভীড় থেকে পুলিশ দুই মহিলাকে উদ্ধার করে। টিএসসিতে তরুণী উত্ত্যক্ত করার খবর পেয়ে পুলিশ গিয়ে কাউকে পায়নি। জনসমুদ্রের মধ্য থেকে পুলিশ ২০ থেকে ৩০ জন তরুণী ও শিশুকে উদ্ধার করে নিরাপদ স্থানে পৌঁছে দেয়। অভিযোগ না পাওয়ায় কাউকে গ্রেফতার করা যায়নি।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, রাজু ভাস্কর্যে মুক্তবাণ সাহিত্য সাংস্কৃতিক সংসদ নামের বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রিক একটি সংগঠন আয়োজিত কনসার্টের আশপাশে কমপক্ষে ১০ জন তরুণী লাঞ্ছিত হন। বিকাল ৪টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত কনসার্ট অনুষ্ঠানের অনুমতি দেয় পুলিশ। তবে তরুণী লাঞ্ছনার ঘটনায় পুলিশ রাত সাড়ে ৮টায় কনসার্টটি বন্ধ করে দেয়। কনসার্ট চলাকালে ছাত্রলীগ নেতার নাম ঘোষণা নিয়ে শিল্পীদের সঙ্গে বাকবিতণ্ডা হয়। একপর্যায়ে অনুষ্ঠান স্থগিত ঘোষণায় দর্শকরা উত্তেজিত হয়ে বিচ্ছৃঙ্খলার সৃষ্টি করে। এ সুযোগে কিছু বখাটে যুবক অনুষ্ঠানের আশপাশে অবস্থান করা ছাত্রীদের ওপর ঝাঁপিয়ে পড়ে। কনসার্ট চলাকালে পুরো এলাকার হাজার হাজার মানুষের ভিড়ের মধ্যে তরুণীরা এসে পড়লে বখাটেরা তাদের লাঞ্ছিত করে। এর মধ্যে রাত পৌনে ৮টার দিকে টিএসসির পেছনের গেইটে ৩ জন ছাত্রীর উপর বেশ কয়েকজন বখাটে ঝাঁপিয়ে পড়ে। বখাটেদের অত্যাচারে মিরপুরের ইলোরা নামের এক তরুণীর কামিজ ছিঁড়ে যায়। অন্য এক ছাত্রীর ওড়না ছিনিয়ে উল্লাস করে বখাটেরা। এ সময়ে কয়েকজন বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র তাদের নিজ শার্ট খুলে এক প্রকার বিবস্ত্র দুই তরুণীর সম্মান রক্ষা করে। ইলোরা ছেঁড়া কামিজের ওপর ছেলেদের শার্ট পরে। পরিচয় ও বাসার কথা জিজ্ঞেস করলেই হাউমাউ করে কেঁদে ওঠে সে। একটাই কথা পরিচয় জেনে কি হবে? আমাকে পুলিশের সামনেই এ অবস্থা করেছে। পহেলা বৈশাখে ক্যাম্পাসে ঘুরতে এসে এ কি হলো!

রাত সাড়ে ৮টার দিকে টিএসসির জনতা ব্যাংকের প্রবেশ গেইটে এক ছাত্রীর উপরে ঝাঁপিয়ে পড়ে কয়েকজন বখাটে। এসময়ে বেশ কয়েকজন সেই ছাত্রীকে রক্ষা করেন। টিএসসি’র মূল গেইট ও ড্যাচের ভিতরে পাঁচ তরুণী লাঞ্ছনার শিকার হন। এদের মধ্যে তিনজন বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি হলের ছাত্রী।

সোহরাওয়ার্দী উদ্যান গেইট ঃ

একাধিক প্রত্যক্ষদর্শী জানান, রাত ৮টার দিকে সোহরাওয়ার্দী উদ্যান এলাকায় পুলিশ লাঠিচার্জ করে। এসময়ে শাড়ি পরিহিত এক তরুণীর শরীরে হাত দেয় এক বখাটে। পরে ঐ বখাটেকে ধরে জুতা পেটা করেন তরুণী। এসময়ে তরুণীর সাথে থাকা এক তরুণও তাকে মারধর করে পুলিশের হাতে সোপর্দ করে। পরে পুলিশ মুচলেকা নিয়ে তাকে ছেড়ে দেয়।

মুহসীন হলের বসুনিয়া গেইট ঃ

বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের ৬ষ্ঠ সেমিস্টারের ছাত্র শরিফুল ইসলাম বলেন, রাত পৌনে ৯টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের মুহসীন হলের বসুনিয়া গেইটে এক তরুণীকে দুই বখাটে লাঞ্ছিত করে। পরে মেয়েটি কান্নাকাটি করেন। এসময়ে তরুণীটির বন্ধুরা লাঠিসোঁটা নিয়ে বখাটেদের তাড়া করেন। তবে বখাটেদের ধরা সম্ভব হয়নি।

উদয়ন স্কুল এন্ড কলেজ

বিশ্ববিদ্যালয়ের কয়েকজন ছাত্র জানান, রাত সাড়ে ৮টার দিকে উদয়ন স্কুল এন্ড কলেজের সামনে এক ছাত্রীকে অজ্ঞান অবস্থায় তার বন্ধুরা নিয়ে যায়। বখাটেদের অত্যাচারে মেয়েটি জ্ঞান হারিয়ে ফেলে। তবে মেয়েটির পরিচয় পাওয়া যায়নি। এছাড়াও কলাভবন ও শাহবাগ এলাকায় তরুণী লাঞ্ছনার অভিযোগ পাওয়া গেছে। ক্যাম্পাসের বিভিন্ন লাঞ্ছনা ঘটনায় জড়িত বখাটেদের পরিচয় পাওয়া যায়নি।

এ বিষয়ে শাহবাগ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা রেজাউল করিম ইত্তেফাককে বলেন, লাঞ্ছনার বিষয়ে থানায় লিখিতভাবে কোন ছাত্রী অভিযোগ করেনি। বিচ্ছিনভাবে বিভিন্ন ঘটনা ঘটেছে। পুলিশ সর্বোচ্চ চেষ্টা করেছে পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ড. কে এম সাইফুল ইসলাম খান ইত্তেফাককে বলেন, তরুণীদের লাঞ্ছনার ঘটনা গুজবও হতে পারে। কারণ গোয়েন্দা, পুলিশ ও বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের কোন সোর্সই এ ব্যাপারে কোন তথ্য দেয়নি। এছাড়া কোন তরুণীও বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের কাছে কোন লিখিত অভিযোগ করেনি। অভিযোগ করলে অবশ্যই ব্যবস্থা নেয়া হবে।

স্টল থেকে চাঁদাবাজির অভিযোগ

পহেলা নববর্ষ উপলক্ষে ক্যাম্পাসের বিভিন্ন অস্থায়ী স্টল থেকে চাঁদাবাজির অভিযোগ উঠেছে। অনেক স্টল মালিক সাংবাদিকদের কাছে এ অভিযোগ করেন। এবার ক্যাম্পাসে প্রায় ৭০টি স্টল বরাদ্দ দেয়া হয়। এছাড়াও এই প্রথম একসাথে চারটি কনসার্ট আয়োজনের সুযোগ দেয়া হয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন রাজনৈতিক ছাত্র সংগঠনের নেতারা বলেন, বহুজাতিক কোম্পানীগুলো স্পন্সরের মাধ্যমে এসব কনসার্ট আয়োজন করে। স্পন্সরের সব টাকা ছাত্র নেতাদের পকেটে গেছে। এর মধ্যে টিএসসির রাজু ভাস্কর্যে একটি মোবাইল ফোন কোম্পানীর কনসার্ট, মলচত্বরে একটি কোমল পানীয় কনসার্ট, কলাভবনের সামনে আরেকটি মোবাইল কোম্পানীর কনসার্ট এবং কলাভবনের মূল গেইটে একটি কনসার্টের আয়োজন করা হয়।

সূত্র: দৈনিক ইত্তেফাক || তারিখ: শুক্রবার, এপ্রিল ১৬, ২০১০

Post new comment

  • Allowed HTML tags: <a> <em> <strong> <cite> <code><b><p><h1><h2><h3><ul> <ol> <li> <dl> <dt> <dd><img><object><param><embed>
  • Web page addresses and e-mail addresses turn into links automatically.
  • Lines and paragraphs break automatically.

More information about formatting options

Image CAPTCHA
Enter the characters shown in the image.
Write in Bangla