Ami Bangladeshi

Ami Bangladeshi

Ami Bangladeshi

Hasina

শেষ রাইতের গপ্পো

Sheikh Hasina & Khaleda Zia
বিস্ময়ে হতবাক হইয়া গেল সবাই । কথা ফুটিলনা কাহারো মুখে। স্তব্ধতার চাদরে ঢাকিয়া গেল ২০ কোটি মানুষের মুখ। এমনটা কি করিয়া সম্ভব ভাবিয়া কুল পাইল না কেহ! একই দিনে একই সময়ে দুইজনের স্বাভাবিক মৃত্যু, ডাক্তার দুরে থাক গণক হাওলাদার পর্যন্ত ব্যর্থ হইল যথার্ত কারণ ব্যাখ্যা করিতে। বিশ্ব মিডিয়া ইহাকে সহস্রাব্দের সেরা আশ্চর্য ঘটনা বলিয়া আখ্যায়িত করিল...

খোকা ইলিশের কোলকাতা যাত্রা এবং বেঁচে থাকার দিনরাত্রি

Future of Bangladeshi

"বেঁচে থাকারও বোধহয় প্রকার ভেদ আছে, কারণ পশুরাও বেঁচে থাকে। একজন বাংলাদেশি এবং একটা বোবা পশুর সমান্তরাল যাত্রা কোথাও না কোথাও এক হতে যাচ্ছে খুব শীঘ্র। পশুর সাথে আমাদের পার্থক্যটা বোধহয় ডারউনের চশমা দিয়ে খুঁজতে হবে সে দিন।"

 

ভারত সফর শতভাগ সফল নয়া দিগন্ত উন্মোচন হয়েছে

Hasina's return from India trip
ভারত সফর শেষে বুধবার দেশে ফিরলে বিমানবন্দরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে শুভেচ্ছা জানান সংসদ উপনেতা সৈয়দা সাজেদা চৌধুরী এবং স্থানীয় সরকার ও পল্লী উন্নয়নমন্ত্রী সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম
যাযাদি রিপোর্ট

পেপ্পি কিভিনিয়ামির ভারত যাত্রা!

Hasina's visit to India
আমার দাদাবাড়িতে ট্রাডিশনটা অনেকদিন পর্য্যন্ত চালু ছিল, গ্রামের এক বাড়িতে নেমতন্নের ব্যবস্থা থাকলে গ্রামের কোন বাড়িতেই সে দিন চুলা জ্বলতনা। পরিবারের একজনকে দাওয়াত দিলে সেজেগুজে বাকি সবাই হাজির হত লাজ লজ্জা চুলায় ঠেলে। যারা ভোজ পর্বের আয়োজন করত তাদেরও জানা থাকত কি হতে যাচ্ছে, তাই ঐ গ্রামে দাওয়াত পর্বের আয়োজন করতে সহজে কেউ সাহষ করতনা। প্রসংগটা টানছি অন্য একটা কারণে। পেপ্পি কিভিনিয়ামি নামের কেউ একজন সহ ১২৪ জনের বিশাল বাহিনী নিয়ে...

যে কাহিনীর আদি নেই অন্ত নেই

রাজনীতির যখন ভরা বসন্ত চারদিক তখন আলোকিত হয় হরেক রকম বাহারী নেতার তেহারি খুশবুতে। অলিগলি রাজপথ প্লাবিত হয় নেতা, উপনেতা, পাতিনেতা, ছটাক নেতা, তোলা নেতা সহ হরেক রকম নেতাদের নর্তন-কুর্দন আর দাপটের মৈথুনে। এমনি এক ভরা বসন্তে চারদিক যখন জংলী আর জঙ্গলের প্রণয় লীলায় টালমাটাল, মা আমায় ডেকে পাঠালেন জরুরী তলবে। ঈশ্বর চন্দ্র বিদ্যাসাগরের মত না হোক অন্তত নিজের মত করে রাজধানী হতে এক ঘন্টার পথ ৫ ঘন্টায় পাড়ি দিয়

জাতির পিতার পরিবার আবাসন সুবিধাসহ রাষ্ট্রীয় নিরাপত্তা পাবে

যেই দেশে ১৫ কোটি মানুষের জীবনের কোন নিরাপত্তা নেই, সেই দেশে জনাবা হাসিনা নিজের এবং তার পরিবারের নিরাপত্তাটা নিশ্চিত করে নিলেন। এ কেমন স্বার্থপরতা? নিজের জীবনটা নিয়ে যদি এতই ভয়, তাহলে বাংলাদেশে পড়ে আছেন কেন?