Ami Bangladeshi

Ami Bangladeshi

Ami Bangladeshi

Awami League

অতি ভক্তি চোরের লক্ষণ

Photobucket
অতি ভক্তি চোরের লক্ষণ। কথাটা আমার নয়, মুনি ঋষিদের। লেখার খাতিরে বিজ্ঞজনেরা লিখেন আর আমরা ম্যাংগো পিপলরা এর মুখোমুখি হই চড়া মূল্য দিতে। কে কাকে ভক্তি করবে এবং কতটা করবে তা একান্তই একজনের ব্যাক্তিগত ব্যাপার। এ নিয়ে ত্যানা পেঁচানোর পরিধি তাত্ত্বিক অর্থে সীমিত থাকার কথা। বাস্তবতা হল, তা সীমিত থাকে না, বিশেষ করে বাংলাদেশিদের বেলায়...

অপরাধ ও শাস্তি, 'মহামান্য' আদালত স্টাইল।

Awami League
৩৯ বছর পর পরিচয় পাওয়া গেল আমার। আমি বাংলাদেশি। সমাজের চোখে কতটা জানিনা তবে ’মহামান্য’ আদালতের চোখে এতদিন আমি ছিলাম পরিচয়হীন, জারজ। দায় মুক্তির চাইতে কলঙ্কমুক্তি আনন্দে আমি এখন দিশেহারা! ধন্যবাদ ’মহামান্য’ আদালতকে। নাগরিক পরিচয় উদ্ধারের পাশাপাশি বিচার ব্যবস্থা আমাদের ইতিহাসের ডিএনএ’তেও হাত দিয়েছে এবং ’পবিত্র’ কলমের খোঁচায় যার যা প্রাপ্য তা ফিরিয়ে দিচ্ছে একে একে। গোপালগঞ্জ আওয়ামি লীগের এককালের মহান নেতা ও উচ্চ আদালতের...

ষড়যন্ত্রের নাও পাহাড় বাইয়্যা যায়...

Awami League
আমার এ লেখাটা আওয়ামী ঘরণার পাঠকদের কাছে যুদ্ধাপরাধী বিচার কাজে বাধার শামিল মনে হতে পারে। এ মুহূর্তে সরকারী কর্মকান্ডের যে কোন সমালোচনা মানেই নিজামী-মুজাহিদীদের পক্ষ নেয়া। যেহেতু লেখাটায় আওয়ামী সমালোচনায় ভরপুর, স্বভাবতই ধরে নেয়া যায় তা ৭১’এর ঘাতকদের বিচার হতে জনগণের দৃষ্টি সরিয়ে নেয়ার ব্লগীয় ষড়যন্ত্র। প্রাসঙ্গিক ভাবে মনে করিয়ে দেয় মার্কিন প্রেসিডেন্ট বুশের ঐতিহাসিক ঘোষনা, 'You are either with us or against us'। কথিত সন্ত্রাস বিরোধী যুদ্ধে যারা আমেরিকার...

১০ টাকা কেজির চাল চাইনা, আপনি 'কুত্তা' সামলান

   

চালের দর ১০ টাকা। কেজি অথবা সের যে কোন হিসাবেই হোক না কেন, স্তিমিত হয়ে গেছে এ নিয়ে জনগণের প্রত্যাশা। প্রথমত, বাংলাদেশের কথা বাদ দিলেও এমন একটা দামে চাল বিক্রির অবস্থায় নেই সমাসাময়িক বিশ্ব। তেল, গ্যাস, পানি আর গতর খাটুনি এক পাল্লায় দাঁড় করিয়ে কোন ভাবেই ১০ টাকার বাটখারা দিয়ে সমান করা যাবে না হিসাবের দাঁড়িপাল্লা। এমন একটা সমীকরণ শুধু অসম্ভবই নয়, এ অলিক ও অবাস্তব। দ্বিতীয়ত, ১০ টাকায় এক কেজি চাল না হলেও না খেয়ে...

খেলারাম খেলে যায়...ওয়াচডগ লিখে যায়...

Bangladeshi dirty politics
হাসিনার জন্যে এ মুহূর্তে খুব কষ্ট হচ্ছে। বেচারা হাজারো চেষ্টা করছেন এই পরিবারের নামকে বাংলাদেশের মাটি হতে চিরতরে উচ্ছেদ করতে। ইহজগতের যেখানেই তাদের নাম ছিল কলমের খোঁচায় বদল করা হয়েছে। এমনকি আইন করে সমাধা করা হয়েছে ঘোষক বিতর্কও। এখন হতে ঐ পরিবারের কাউকে স্বাধীনতার ঘোষক দাবি করলে রাষ্ট্রদ্রোহিতার মত গুরুতর অপরাধ হিসাবে বিবেচিত হচ্ছে। কিন্তু এসবেও খুব একটা কাজ হচ্ছে বলে মনে হয়না। উপরের ছবিটা দেখে তিনি মনে খুব কষ্ট পেয়ে থাকবেন, ভাষায় প্রকাশ না করলেও আমার মত ম্যাংগো-পিপলদের বুঝতে অসুবিধা হয়না। এক বাদশাহীতে দুই বাদশাহ কারই বা কাম্য হতে পারে...

মিথ্যাচারের গর্ভে জন্ম নেয়া আওয়ামী পাপাচার

hypocrisy of awami league
সামনে পুলিশ, পিছে পুলিশ, ডাইনে চামচা বায়ে চামচা, আসমান জমিনে স্তূতির বানে ভেসে পথ চলেন তিনি। একাধারে প্রধানমন্ত্রী, আলিশান দলের ততধিক আলিশান সিইও, চেয়ারম্যান, প্রোপাইটর, নামের আগে শেখ পিছে ওয়াজেদ। পাঠক, আপনার কি চিনতে অসুবিধা হচ্ছে...

মুজিব বন্দনার মূর্ছনা, নেশার শেষ কোথায়?

Bangladeshi Dirty Politics
ঘটনার যেন শেষ হতেই চায়না। একটার পর একটা লেগেই থাকে নেতাকে নিয়ে মাতামাতির দিবস। আজ জন্মদিন তো কাল ভাষন দিবস, পরশু স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস তো তরশু ঘোষনা দিবস। নেতাকে ঘিরে বছরজুড়েই চলতে থাকে একটার পর একটা আয়োজন। শেখ মুজিবকে মাটির কবর হতে উঠিয়ে ঐশ্বরিক সৃষ্টিতে রূপান্তরিত করার চেষ্টা হয়ে দাঁড়িয়েছে আওয়ামী দেশ শাসনের মূল এজেন্ডা। সহস্রাব্দের সেরা বাঙালী...

ভারত সফর শতভাগ সফল নয়া দিগন্ত উন্মোচন হয়েছে

Hasina's return from India trip
ভারত সফর শেষে বুধবার দেশে ফিরলে বিমানবন্দরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে শুভেচ্ছা জানান সংসদ উপনেতা সৈয়দা সাজেদা চৌধুরী এবং স্থানীয় সরকার ও পল্লী উন্নয়নমন্ত্রী সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম
যাযাদি রিপোর্ট