Ami Bangladeshi

Ami Bangladeshi

Ami Bangladeshi

Awami League

জিএসপি সুবিধা, খালেদা জিয়ার আর্টিকেল ও একজন সারাহ ফেনিগানের গল্প

suranjit sen gupta, bangladesh
হঠাৎ করেই তিনি নিউ ইয়র্ক সফরে এলেন। বাংলাদেশকে পরবর্তী তালেবান রাষ্ট্র হিসাবে ঘোষনা দিলেন। উনার বৈজ্ঞানিক পুত্রকে ব্যবহার করে ভারতীয় পত্রিকায় বাংলাদেশে আল কায়েদার সেকেন্ড-ইন-কমান্ড আয়মেন আল জাওহারির লুকিয়ে থাকার অভিনব কাহিনী প্রকাশ করলেন। টনক নড়ে বুশ প্রশাসনের। বাংলাদেশিদের গলায় ঝুলিয়ে দেয়া হয় নিয়ন্ত্রণের লাল কালি। স্থায়ী অস্থায়ী অনেককেই ডাকা হয় হোমল্যান্ড সিকিউরিটি অফিসে। নিবন্ধনের জন্য শীতের সকালে হাজার হাজার বাংলাদেশিকে লাইন ধরতে বাধ্য করান চেতনার ঠিকাদার এই নেত্রী...

ছাত্রলীগ-যুবলীগ ও কিছু চুদুর বুদুর সংলাপ

Chattro League
চুদুর বুদুর কতা কইয়েন না। পলামু কা? ইলেকশনে হারলে পলাইতে হইবো এই থিওরি কই পাইলেন? যুবদলের আলাল-দুলাল আগের বার কি পলাইছিল? হেরা যুবদল ও ঠিকাদার। বিম্পি আমলে টেন্ডার ছিনতাই করছে, গুল্লি কইরা আরেক ঠিকাদাররে আল্লার দরবারে পাঠাইছে...

গগনে গরজে মেঘ

দুই পরিবারের ক্ষমতার লড়াই দেশকে গৃহযুদ্ধের দাঁড়প্রান্তে নিয়ে গেছে। কুৎসিত এ লড়াইয়ের বলি হয়ে গোটা জাতি ধুকছে। পাশাপাশি জাতীয় সম্পদ লুটপাটের ভয়াবহ প্রতিযোগিতা ছোট করে দিচ্ছে সুস্থ স্বাভাবিক হয়ে বেচে থাকার পৃথিবী। পরিসর সীমিত হলেও ভার্চুয়াল দুনিয়া ছিল এমন একটা স্থান যেখানে দলীয় ভক্তির উর্ধ্বে উঠে তুলে ধরা যেত রাজনীতি তথা অর্থনীতির আসল চেহারা...

শাহবাগ চত্ব্বর। গণজাগরণ, না আওয়ামী লীগের সফল নির্বাচনী ক্যাম্প?

দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত ঘরে না ফেরার শপথ নিয়েছে শাহবাগ চত্বরে অবস্থানরত সরকারের বর্ধিত মন্ত্রীসভা। এখানে প্রশ্ন উঠতে বাধ্য, দাবিটা কি? যুদ্ধাপরাধীদের ফাঁসি? চলমান বিচার প্রক্রিয়া নিয়ে যেখানে মন্তব্য পর্যন্ত বেআইনী সেখানে ঘেরাও, হুমকি দিয়ে রায় আদায় কোনভাবেই আইনী প্রক্রিয়ার মধ্যে পড়েনা। পৃথিবীর কোন আইনেই তা বৈধতা পাবে না। এ ধরনের কর্মকাণ্ড আদালতের যে কোন রায়ের বৈধতাকে প্রশ্নবিদ্ধ করবে মাত্র। রায়ের আগে জনতার দাবি বিবেচনায় আনার প্রধানমন্ত্রীর আহবান আদালতকে অনেকটা হাসির পর্যায়ে নামিয়ে এনেছে...

তুতসি হুতুদের রুয়ান্ডা ও শহবাগ সরকারের বাংলাদেশ

sheikh hasina and rajakar
কথা ছিল যুদ্ধাপরাধীদের বিচার হবে। সে উদ্দেশ্যে ট্রাইবুনাল বসানো হল। বিচারক নিয়োগ দেয়া হল। ঢাক ঢোল পিটিয়ে শুনানির আয়োজন করা হল। মাসের পর মাস চললো সে শুনানি। অথচ রায়ের জন্য বসানো হল শাহবাগী সরকার। আদলতকে জিম্মি করে রায় বের করার নাম আর যাই হোক বিচার হতে পারেনা। এ শ্রেফ ভাওতাবাজি, এক অর্থে রাজনৈতিক ক্রসফায়ার...

হাতে রক্ত, আঙ্গিনায় লাশ আর মুখে গণতন্ত্র...পাকিস্তানি ভণ্ডামির আওয়ামী সংস্করণ!

Awami League
ক্ষমতার রাজনীতিতে সরকার ও বিরোধীদলের ভূমিকা এবং এদের পারস্পরিক সম্পর্ক যে কোন দেশেই এখন প্রয়োজনের চাইতে অতিরিক্ত তিক্ত। প্রেক্ষাপট ভিন্ন হলেও গড় বিবেচনায় এর অন্যতম কারণ বিশ্বব্যাপী অর্থনৈতিক মন্দা। এ ধরণের মন্দা কেবল বাজারকেই প্রভাবিত করছে না, বরং প্রভাবিত করছে রাজনীতি সহ সামাজিক জীবন। অনিশ্চিত বাজার কাঠামো পৃথিবীর দেশে দেশে অস্থিরতা বাড়াচ্ছে, সাথে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে রাজনৈতিক অসহিষ্ণুতা। নভেম্বরের প্রেসিডেনশিয়াল নির্বাচনকে ঘিরে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে যা ঘটছে তা এক কথায় অভাবনীয় ও নজিরবিহীন। পুঁজির অবাধ বিকাশ তত্ত্বের উপর দাঁড়ানো মুক্ত বাজার অর্থনীতিতেও কথা উঠছে সম্পদের অসম বন্টন ও সামাজিক বৈষম্য নিয়ে। কেবল মুখ আর কলমে থেমে না থেকে এসব কথা এখন বেরিয়ে পরছে দেশটার মাঠে ময়দানে। মানুষ অনন্যোপায় হয়ে রাস্তায় নামছে...

ডিজিটাল কফিনে দিন বদলের দাফন। তথ্যই কথা বলে...

Bangladesh Awami League
লেখাটা যখন লিখছি গাড়ি বহর নিয়ে চট্টগ্রামে শোডাউন করছেন বিরোধী দলের নেত্রী। রাজনৈতিক কার্যক্রমের অংশ হিসাবে গোটা বাংলাদেশকে এধরণের শোডাউনের আওতায় আনা হয়েছে ইতিমধ্যে। বলা হচ্ছে এটা হবে রাজনৈতিক সাংস্কৃতির নতুন সংযোজন রোডমার্চের শেষ পর্ব এবং এরপর আসবে সরকার পতনের ডাক ও এতদসংক্রান্ত নতুন কর্মসূচী (ইতিমধ্যে দেয়া হয়েছে)। যারা বিরোধী রাজনীতির সাথে সক্রিয়ভাবে জড়িত তাদের জন্যে নিশ্চয় এটা একটা খবর এবং চাইলে এ নিয়ে ঝঞ্ঝা বিক্ষুব্ধ রাজনীতির নতুন অধ্যায় লিখতে পারবেন। কিন্তু আমার মত দেশীয় রাজনীতিকে যারা ক্ষমতা কুক্ষিগত করার আন্তপারিবারিক লড়াই হিসাবে দেখতে অভ্যস্ত তাদের জন্যে এসব কোন খবর নয়, বরং ক্ষমতার সিঁড়ি ডিঙ্গবার নয়া কৌশল মাত্র। খালেদা জিয়ার...

৭১'এর দেনা, মূল্য ২০০ ভরি মাত্র!

Sheikh Family
দেওয়ার ভেতর নাকি এক ধরণের আনন্দ আছে। কথাটা বহুবার শুনেছি গুরুজনদের মুখে, বিশেষকরে ছোটবেলায়। সময় ও বাস্তবতা হয়ত অনেককিছুই বদলে দিয়েছে। দেওয়া নয়, আজকাল নেওয়াটাই শক্ত আসন করে নিয়েছে আমাদের রাজনৈতিক, অর্থনৈতিক ও সামাজিক সংস্কৃতিতে। জাতি হিসাবে আমাদের আজকের যে অবস্থান তার সবটাই আবর্তিত হচ্ছে নেওয়ার ভেতর। ব্যবসায়ী নিচ্ছে জনগণের পকেট হতে, রাজনীতিবিদ আর আমলারা নিচ্ছে সরকারের পকেট হতে, বিচারক কাটছেন আসামীর পকেট, আসামী কাটছে জনগণের পকেট। একই চক্রে জড়িয়ে যাচ্ছে প্রায় গোটা জনগণ। আজকাল প্রেম ভালবাসায়ও রাজত্ব করছে কেবল নেওয়া...