Ami Bangladeshi

Ami Bangladeshi

Ami Bangladeshi

bnp

কাঁদো বাঙ্গালী কাঁদো

 Bangladesh - August 15th
মানুষ আপন পিতার মৃত্যুতেও শোকাভিভূত হয়ে সপ্তাহ অতিবাহিত করেনা। অথচ গোটা জাতিকে বলা হচ্ছে মাস ভরে কাঁদতে। কান্নাকাটির সিম্ফোনিতে জাতিকে শোকের সাগরে ভাসিয়ে তেনারা নিবিড় ভাবে চালিয়ে যান ভাগ্য গড়ার কলকব্জা। এক মাসের জন্য জীবন থমকে যেতে বাধ্য করা হলেও থমকে যায়না বন্দুকের নল। থেমে যায়না টেন্ডার বাণিজ্য। থমকে দাঁড়ায়না ব্যাংক লুট। অস্ত যায়না সন্ত্রাসী রাজত্বের। অথচ কোথায় কে জন্মদিনের কেক কাটলো তা নিয়ে চলে কারবালার মাতম...

সমস্যার ডিজিটাল সমাধান, বাংলাদেশের বিভক্তি

Awami League and BNP
প্রধানমন্ত্রীর ক্ষমতায় থাকাটা অতীব জরুরি। ১৬ কোটির ৮০ ভাগ জনগণ যা বুঝতে অক্ষম তা তিনি বুঝে গেছেন সবার আগে। তাই প্রধান বিচারপতিকে দিয়ে দেশকে রক্ষা করেছেন তত্ত্বাবধায়ক নামক ভয়াবহ ’কলেরা’ হতে। এহেন মৌলিক কৃতকর্মের জন্য আগামীতে নোবেল শান্তি পুরস্কারের দাবি উঠলেও অবাক হওয়ার থাকবেনা। উন্মাদ প্রায় এই মহিলা যে সব কথাবার্তা বলছেন তার তাৎক্ষণিক ফলাফল পাওয়া যাচ্ছে রাজপথে। প্রতিদিন মানুষ মরছে। মরছে আগুনে, মরছে পুলিশের গুলিতে, মরছে যত্রতত্র। কিন্তু মহিয়সী এই নারীর বিচারে গণতন্ত্র শাসনতন্ত্র এমনসব আসমানী কিতাব যার দিকে তাকানোও অপরাধ। সে অপরাধ হতে জাতিকে রক্ষা করার একক পাহারাদার সেজেছেন তিনি...

বেগম জিয়ার ক্ষমা তত্ত্ব ও কিছু প্রশ্ন

Awami League and BNP
৫৭ জন সেনা অফিসারকে বাঁচানোর জন্য একটা বুলেট খরচ করতে যিনি বাধ সেধেছিলেন সেই তিনি হেফাজতিদের নিরস্ত্র মিছিলে পাগলা কুকুরের মত লেলিয়ে দিয়েছিলেন সরকারের সবকটা বাহিনী। আমরা দেখতে চাই এ জন্যে কেউ না কেউ আসামীর কাঠগড়ায় দাঁড়াচ্ছে, কেউ ফাঁসিতে ঝুলছে। লাখ লাখ বিনিয়োগকারীকে পথের ভিখিরি বানিয়ে সম্পদের পাহাড়ের উপর যারা ঘোড়া দাবাচ্ছে তাদের ক্ষমা করার জন্য জনগণ বেগম জিয়াকে প্রধানমন্ত্রী বানাবে না..l.

গগনে গরজে মেঘ

দুই পরিবারের ক্ষমতার লড়াই দেশকে গৃহযুদ্ধের দাঁড়প্রান্তে নিয়ে গেছে। কুৎসিত এ লড়াইয়ের বলি হয়ে গোটা জাতি ধুকছে। পাশাপাশি জাতীয় সম্পদ লুটপাটের ভয়াবহ প্রতিযোগিতা ছোট করে দিচ্ছে সুস্থ স্বাভাবিক হয়ে বেচে থাকার পৃথিবী। পরিসর সীমিত হলেও ভার্চুয়াল দুনিয়া ছিল এমন একটা স্থান যেখানে দলীয় ভক্তির উর্ধ্বে উঠে তুলে ধরা যেত রাজনীতি তথা অর্থনীতির আসল চেহারা...

আসুন প্রতিবাদ করি, প্রতিরোধ গড়ে তুলি

Bangladeshi Politics
দেশপ্রেমিক প্রবাসী ভাই ও বোনেরা।

পৃথিবীর দেশে দেশে এখন স্বৈরতন্ত্র, রাজতন্ত্র ও পরিবারতন্ত্রের উচ্ছেদ চলছে। ২০, ৩০ আর ৪০ বছরের লুটেরা শাসনের জিঞ্জির ভেংগে বেরিয়ে আসছে সাহারা মরুভূমি হতে শুরু করে লোহিত সাগরের মানুষ। বেন আলী পালিয়েছে তিউনিশিয়া হতে, মিশরের হোসনি মোবারক নিজ গৃহে বন্দী, পায়ের তলা হতে মাটি সড়ে যাচ্ছে লিবিয়ার একনায়ক গাদ্দাফির। ইয়েমেন, ওমান আর সৌদি আরব পর্যন্ত পৌছে গেছে পরিবর্তনের সুনামি। ঠিক এমনি এক প্রেক্ষাপটে আমাদের প্রিয় মাতৃভূমি বাংলাদেশে...

ক্ষমা চাওয়ায় অগৌরবের কিছু নেই ম্যাডাম জিয়া

BNP - Khaleda Zia
মুনি ঋষিরা বলেন ক্ষমা চাওয়া না-কি মহত্ত্বের লক্ষণ। মহত্ত্বের জন্যে কেউ ক্ষমা চায় কিনা জানিনা তবে পশ্চিমা দুনিয়ায় বাস করতে গিয়ে কথায় কথায় ক্ষমা চাওয়ার অভ্যাসটা হাড্ডির সাথে মিশিয়ে নিয়েছি অনেকটা বাধ্য হয়ে। ’এক্সকিউজ মি, ’আই এম সরী‘ ‘আই বেগ ইউর পারডন’ এ জাতীয় বাক্যগুলো তোতা পাখির মত ঠোঁটের আগায় লেগে থাকে সার্বক্ষনিক ব্যবহারের জন্য। ছোটখাট ভুল ও অন্যায়ের পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া হতে রেহাই...

খেলারাম খেলে যায়...ওয়াচডগ লিখে যায়...

Bangladeshi dirty politics
হাসিনার জন্যে এ মুহূর্তে খুব কষ্ট হচ্ছে। বেচারা হাজারো চেষ্টা করছেন এই পরিবারের নামকে বাংলাদেশের মাটি হতে চিরতরে উচ্ছেদ করতে। ইহজগতের যেখানেই তাদের নাম ছিল কলমের খোঁচায় বদল করা হয়েছে। এমনকি আইন করে সমাধা করা হয়েছে ঘোষক বিতর্কও। এখন হতে ঐ পরিবারের কাউকে স্বাধীনতার ঘোষক দাবি করলে রাষ্ট্রদ্রোহিতার মত গুরুতর অপরাধ হিসাবে বিবেচিত হচ্ছে। কিন্তু এসবেও খুব একটা কাজ হচ্ছে বলে মনে হয়না। উপরের ছবিটা দেখে তিনি মনে খুব কষ্ট পেয়ে থাকবেন, ভাষায় প্রকাশ না করলেও আমার মত ম্যাংগো-পিপলদের বুঝতে অসুবিধা হয়না। এক বাদশাহীতে দুই বাদশাহ কারই বা কাম্য হতে পারে...

অদ্ভূত এক উটের পিঠে সওয়ার হয়ে চলছে বাংলাদেশ...

Students of Eden College, Dhaka
বাংলা ছায়াছবির কোন স্থির চিত্র নয়, দেশীয় নীল ছবির সমকামিতারও কমার্শিয়াল নয় এ ছবি। এ ছবি আমাদের শিক্ষাংগনের। জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল (মহিলা স্কোয়াড) ইডেন কলেজ শাখার সদস্যরা মনে করেছে এ পথেই তাদের প্রায়ত নেতা শহীদ জিয়ার স্বপ্ন বাস্তবায়ন সম্ভব, এবং তা অতি সংক্ষিপ্ত সময়ে। ক্ষমতার মসনদে তখন জাতীয়তাবাদের পতাকা, শেরে বাংলাস্থ শহীদ জিয়ার মাজারে বিউগলের সূর ততদিনে উঠে গেছে বিপদজনক ডেসিবেলে। এককথায় বাংলাদেশ ভাসছে শদীদ জিয়ার স্বপ্ন বাস্তবায়নের জ্বরে।