Ami Bangladeshi

Ami Bangladeshi

Ami Bangladeshi

রাজনীতির সার্কাস বনাম সার্কাসের রাজনীতি, ঠিকানাঃ নিউ ইয়র্ক

Clowns of Awami League
১৯৮৮ সালের কথা। বন্যায় তলিয়ে গেছে সমগ্র বাংলাদেশে। মিলিটারি একনায়ক জেনারেল এরশাদকে ক্ষমতাচ্যুত করার গন-আন্দোলন দানা বাধার মুখে এ ধরনের ভয়াবহ বন্যা কিছুটা হলেও স্বস্তি এনে দেয় এরশাদ শিবিরে। সংগত কারণেই মনক্ষুন্ন হন দুই মেগা দলের ততোধিক মেগানেত্রীদ্বয়। আন্দোলন মুখ থুবড়ে পরে এবং চতুর এরশাদ বন্যার হাটু পানিতে রিলিফ যাত্রা মঞ্চায়নের মাধ্যমে সাময়িকভাবে হলেও ধৌত করতে সক্ষম হন নিজ কলংকের কিছু কালো অধ্যায়। এরশাদ কাব্যিক কায়দায় বিশ্ব সমাজের দুয়ারে পৌছে দেন বাংলাদেশের র্দুভোগের করুন চিত্র। কিছুটা দেরীতে হলেও বাংলাদেশ ভেসে যায় বিদেশী ত্রান সামগ্রীতে। ক্ষমতার এত কাছ হতে গন্ধ পাওয়া দুই দলের মহান নেতা-নেত্রীরা প্রমাদ গুনে হতাশ হলেন, বন্যা আক্ষরিক অর্থেই ভেস্তে দিয়েছে আন্দোলনের ভীত।

ঘুরে এলাম গ্রান্ড ক্যানিয়ন - ১ম পর্ব

grand canyon
কথা ছিল খুব সকালে বেড়িয়ে পরব। কিন্তূ বেরুতে বেরুতে দুপুর হয়ে গেল। এতদিন জানতাম বাংলাদেশী ললনারাই সাজ গোছের কারণে সব জায়গায় লেট, কিন্তূ আমার এই বিদেশী গৃহিনীও যে একই রোগে আক্রান্ত তা জানতে পেরে কিছুটা হলেও আস্বস্ত হলাম। ৫০০ মাইল (৮০০ কিঃমিঃ) যেতে হবে আমাদের, রাস্তায় বিশেষ কোন অসূবিধা না হলে প্রায় ৬ ঘন্টার উপর ড্রাইভ। ৩ মাস ধরে বেকার...

ব্লগার, আপনি আত্মহত্যা করুন

Blogger
প্রেক্ষাপট-১:
গোয়ালন্দ ঘাট হয়ে ট্রেনে করে ঢাকা ফিরছি। কমলাপুর ষ্টেশনের অনতিদূরে মালিবাগ ক্রসিং পার হতেই ঠায় দাড়িয়ে গেল ট্রেনটা। মহাকালের সময় হতে হাটি হাটি পা পা করে একটা ঘন্টা বিদায় নিল, কিন্তূ ট্রেনটা সেই যে লাশ হয়ে দাড়াল আর জ্যান্ত করা গেল না। সাথে একগাদা লাগেজ, তাই অন্য দশটা যাত্রীর মত টারজান কায়দায় ট্রেন হতে লাফিয়ে রিক্সা চেপে উউউউ শব্দে গন্তব্যে পৌছার ছবি চিত্রায়ন সম্ভব হলনা। চরম বিরক্তিতে ত্যাক্ত বিরক্ত...

আজকের অন্য রকম হরতাল!

মানুষের মৃত্যু যেমন অন্য রকম হয়না, হরতালের চেহারারাও কখনো অন্য রকম হতে পারেনা। ১৫কোটি মানুষের জীবনকে জিম্মি করে নিজদের বক্তব্য প্রকাশ করার নাম গনতান্ত্রিক অধিকার নয়, শ্রেফ গুন্ডামি। আমাদের দেশে হরতাল মানেই আগের সন্ধ্যায় ত্রাশ তৈরী করে জনগনকে ভয় দেখানো, হরতালের সকালে মোড়ে মোড়ে ডান্ডা নিয়ে যানবাহন এবং সাধারন মানুষের উপর ঝাপিয়ে পরা। হরতাল পালন যদি গনতান্ত্রিক অধিকার হয়ে থাকে, না পালন করাটাও একই অধিকারের তালিকায় আসা বাঞ্ছনীয়। এ বিবেচনায় প্রতিটা মানুষের নিজস্ব পছন্দকে সন্মান জানানো উচিৎ।

বাউল সম্রাট শাহ আব্দুল করিম গুরুতর অসুস্থ

আমি নিশ্চিত, এ বাউলের গান রিমেক করে অনেকে অনেক পয়সা কামিয়েছে, কিন্তূ আজ তাকে দেখার এমন কেউ নেই। এ বড় দুঃখজনক। বাউল কবিদের গান, যাদের অনেকেই নিস্ব হয়ে পথে পথে ঘুরে বেড়ান, হাইটেক সাউন্ডে রিমেক করে লাখ লাখ টাকা কামাচ্ছে মিউজক ইন্ডাষ্ট্রী। এর কোন অংশ আদৌ মূল লেখক এবং গায়কদের পকেটে যায় কিনা সন্দেহ। অথচ পশ্চিমা দুনিয়ায় এর ঠিক উলটোটাই স্বীকৃত।

বন্ধ হোক এ পশুত্ব!

রেহাই দিন এসব ভন্ডামি হতে!

Hasina and Khaleda
হ্যাঁ, শেষ পর্য্যন্ত দেখা হল দুই মহিয়সীর। এবং সেই সেনা বাহিনীর আস্তানায়, যাদের কারণে বছর ধরে দিন কাটাতে হয়েছে বিলাস বহুল জেলখানায়। ‘আপনি কেমন আছেন, আমি ভাল আছি, পার্লামেন্টে আসেন না কেন, না না সাহারা খাতুন লাঠি নিয়ে তৈরী আছেন, হা হা হা’। এ ভাবেই শুরু এবং এ ভাবেই শেষ বহু প্রতীক্ষিত মহামিলন। চারদিক উজ্বল হয়ে উঠল ফ্লাশ লাইটের আলোতে, সাংবাদিকরা তাদের ক্যামেরায় ধরে রাখল ইতিহাসের এই বিরল মুহুর্ত। দুই দলের উজির নাজিরদের চেহারায় ফুটে উঠল সাফল্যের ৩২পাটি হাসি। হ্যাঁ, আমি বাংলাদেশের চীর বৈরী দুই দলের দুই নেত্রীর দেখা হওয়ার কথা বলছি। প্রতিরক্ষা বাহিনীর বার্ষিক ইফতার পার্টিতে আমন্ত্রিত হয়ে এসেছিলেন বাংলাদেশের এই দুই নেত্রী। চাইলেও এড়িয়ে যাওয়ার উপায় ছিলনা, তাই হাত মেলানো, কুশল বিনিময়, এবং হাসি হাসি বিদায় পর্ব।

আর কত কাল?

Bangladesh Awami League and BNP
অবস্থাদৃষ্টে মনে হচ্ছে ট্রানজিট নিয়ে রাজনৈতিক দলগুলো নতুন করে শো ডাউন শুরু করতে যাচ্ছে। এশিয়ান হাইওয়ে নিয়ে বিতর্কের সূত্রপাত। সরকার বলছে আমরা আর্ন্তজাতিক সম্প্রদায় হতে দূরে থাকতে পারি না, সুতরাং এশিয়ান হাইওয়ে আমাদের জন্যে জরুরী। ক্ষমতাহারা দলগুলো বলছে, এশিয়ান হাইওয়ে আসলে ভারতের পুরানো দাবি ট্রানজিট সুবিধারই নতুন সংস্করন। ফ্রেশ চক্রান্ত এবং ষড়যন্ত্রের গন্ধ পেয়ে মাঠে নামতে যাচ্ছে বিরোধী দল। পাশাপাশি সরকারী দল দাবী করছে দেশপ্রেমের তাগাদা তাদেরকে উজ্জীবিত করছে চুক্তি সম্পাদনে। কোন পক্ষ সত্য বলছে এমনটা বুঝার জন্যে সাধারণ মানুষের সামনে কোন রাস্তাই খোলা থাকছে না, কারণ দুই পক্ষই নিজদের দাবী নিয়ে এতটা পোলারাইজড, তাতে প্রতিপক্ষের দাবী নিয়ে আলোচনার সামান্যতম কোন স্থান নেই।