Ami Bangladeshi

Ami Bangladeshi

Ami Bangladeshi

khaleda zia

হায়েনার অরণ্য

Bangladesh
বেগম খালেদা জিয়া এবং তার দলও ধোয়া তুলসীপাতা নয়। ক্ষমতার মানসসরোবরে তারা কিভাবে অবগাহন করেছিলেন তার ইতিহাস এত তাড়াতাড়ি ভুলে যাওয়ার কথা না। পার্থক্যটা হচ্ছে খালেদার খাম্বা চুরির তুলনায় হাসিনার ব্যাংক, বীমা, সেতু, শিক্ষা, স্বাস্থ্য, বিদ্যুৎ, গ্যাস সহ দেশীয় অর্থনীতির সবকটা প্রতিষ্ঠানকে চুরির ভাগার বানানোর অপরাধ হিমালয় সমান। তাই খালেদা জিয়ার ব্যর্থতা ও অপরাধ দিয়ে শেখ হাসিনার অপরাধ পবিত্র করার অবকাশ নেই...

অন্যায়ের দাড়িপাল্লায় দুই নেত্রী ও নিরপেক্ষতার ভন্ডামি

Sheikh Hasina and Khaleda Zia
হঠাৎ করে কি হল এই মহিলার? উন্মাদনার চূড়ান্ত পর্যায়ে গিয়ে রাজনীতি নিয়ে এমন সব কথাবার্তা বলছেন যা কেবল একজন মানসিক ভারসাম্যহীন রোগির পক্ষেই বলা সম্ভব। মা-বাবা, ভাই সহ পরিবারের সবাইকে এক সাথে হারালে যে কেউ মানসিক ভারসাম্য হারাতে পারে। মানবিক ও চিকিৎসা শাস্ত্রের বিবেচনায় এ আলামত খুবই স্বাভাবিক। কিন্তু এখানে প্রশ্ন উঠবে মানসিকভাবে অসুস্থ একজনকে সরকার প্রধান করার বৈধতা নিয়ে। খালেদা জিয়ার লেখাপড়ার দৌড় উল্লেখ করার মত তেমন নয়। পাশাপাশি শেখ হাসিনার দাবি তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের গ্রাজুয়েট। গেল পাঁচ বছর রাজনীতিবিদ ও সরকার প্রধান হিসাবে এই মহিলার মুখ হতে যেসব আবর্জনা বেরিয়েছে তা কি আদৌ কোন শিক্ষিত মানুষের কথা হতে পারে?...

সমস্যার ডিজিটাল সমাধান, বাংলাদেশের বিভক্তি

Awami League and BNP
প্রধানমন্ত্রীর ক্ষমতায় থাকাটা অতীব জরুরি। ১৬ কোটির ৮০ ভাগ জনগণ যা বুঝতে অক্ষম তা তিনি বুঝে গেছেন সবার আগে। তাই প্রধান বিচারপতিকে দিয়ে দেশকে রক্ষা করেছেন তত্ত্বাবধায়ক নামক ভয়াবহ ’কলেরা’ হতে। এহেন মৌলিক কৃতকর্মের জন্য আগামীতে নোবেল শান্তি পুরস্কারের দাবি উঠলেও অবাক হওয়ার থাকবেনা। উন্মাদ প্রায় এই মহিলা যে সব কথাবার্তা বলছেন তার তাৎক্ষণিক ফলাফল পাওয়া যাচ্ছে রাজপথে। প্রতিদিন মানুষ মরছে। মরছে আগুনে, মরছে পুলিশের গুলিতে, মরছে যত্রতত্র। কিন্তু মহিয়সী এই নারীর বিচারে গণতন্ত্র শাসনতন্ত্র এমনসব আসমানী কিতাব যার দিকে তাকানোও অপরাধ। সে অপরাধ হতে জাতিকে রক্ষা করার একক পাহারাদার সেজেছেন তিনি...

গগনে গরজে মেঘ

দুই পরিবারের ক্ষমতার লড়াই দেশকে গৃহযুদ্ধের দাঁড়প্রান্তে নিয়ে গেছে। কুৎসিত এ লড়াইয়ের বলি হয়ে গোটা জাতি ধুকছে। পাশাপাশি জাতীয় সম্পদ লুটপাটের ভয়াবহ প্রতিযোগিতা ছোট করে দিচ্ছে সুস্থ স্বাভাবিক হয়ে বেচে থাকার পৃথিবী। পরিসর সীমিত হলেও ভার্চুয়াল দুনিয়া ছিল এমন একটা স্থান যেখানে দলীয় ভক্তির উর্ধ্বে উঠে তুলে ধরা যেত রাজনীতি তথা অর্থনীতির আসল চেহারা...

টু ওম্যান এন্ড ফিউ হাফ-ম্যান...বেড়ালের গলায় ঘন্টা বাধার এখনই সময়।

hasina and khaleda
তৃতীয় বিশ্বের রাজনীতিবিদ হতে চাইলে প্রয়োজন কিছু অতিরিক্ত মেধার। কি আছে আমাদের দুই নেত্রীর মগজে? হিংসা, জেদ, ক্রোধ, প্রতিশোধ, পিতা ও স্বামীর নামে দেশকে পারিবারিক সম্পত্তি বানিয়ে চিরস্থায়ী বন্দোবস্ত নেয়ার খায়েশ ছাড়া অন্য কোন গুনাবলী জাতির সামনে উন্মোচিত করতে পারেননি নেত্রীদ্ধয়...

ক্ষমা চাওয়ায় অগৌরবের কিছু নেই ম্যাডাম জিয়া

BNP - Khaleda Zia
মুনি ঋষিরা বলেন ক্ষমা চাওয়া না-কি মহত্ত্বের লক্ষণ। মহত্ত্বের জন্যে কেউ ক্ষমা চায় কিনা জানিনা তবে পশ্চিমা দুনিয়ায় বাস করতে গিয়ে কথায় কথায় ক্ষমা চাওয়ার অভ্যাসটা হাড্ডির সাথে মিশিয়ে নিয়েছি অনেকটা বাধ্য হয়ে। ’এক্সকিউজ মি, ’আই এম সরী‘ ‘আই বেগ ইউর পারডন’ এ জাতীয় বাক্যগুলো তোতা পাখির মত ঠোঁটের আগায় লেগে থাকে সার্বক্ষনিক ব্যবহারের জন্য। ছোটখাট ভুল ও অন্যায়ের পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া হতে রেহাই...

বাস্তুহারা কোচানস্ত্রা এবং দুই এতিমের এতিম কাহিনী

Tareq Zia, Khaleda Zia, Koko
উনি প্রধানমন্ত্রী, এবং এতিমদের শোকে শোকাভিভূত মহিয়সী এক নারী। অনেকের জন্যে অনেক কিছু করলেও এ যাত্রায় এতিমদের জন্য আলাদা কিছু করার তাগাদা অনুভব করলেন। রূপকথার রাজকন্যাদের মত 'হও' বললেই যেখানে সবকিছু হয়ে যায় সেখানে এতিমদের জন্যে ‘প্রধানমন্ত্রীর এতিম তহবিল‘ তৈরী হতেও কালক্ষেপণ হল না । আতশবাজি পুড়ল না, কোথাও কেউ তোরণ নির্মান করল না, আনন্দ করতে কাউকে রাস্তায় পর্যন্ত নামতে হল না। বিশেষ প্রসব বেদনা ছাড়াই মহিয়সীর গর্ভ হতে জন্ম নিল...

কাশিমবাজার কুঠি জয় ও পানিপথের দ্ধিতীয় যুদ্ধ।

Hasina-Khaleda
বিরোধী দলীয় নেত্রীকে সেনানিবাসের বাড়ি হতে উচ্ছেদকে দেশের বিচার ব্যবস্থা, সরকার, সেনাবাহিনী এবং ক্ষমতাসীন দল সহ ভোজন রসিক টক শো হোস্ট ও বুদ্ধিজীবীদের বিরাট অংশ বিশাল অন্যায়ের বিরুদ্ধে মহা বিশাল বিজয় হিসাবে আখ্যায়িত করে তৃপ্তির ঢেকুর তুলছেন। নব্য নবুয়ত পাওয়া কতিপয় আওয়ামী নেতা মইনুল হোসেন রোডের ঐ বাড়িকে কাশিমবাজার কুঠি আখ্যায়িত করতেও দ্বিধা করছেন না। অবস্থাদৃষ্টে মনে হচ্ছে আমাদের প্রিয় জন্মভূমি ’৭১ এর পর নতুন করে আবার স্বাধীনতা পেল। দেশের দ্বিতীয় স্বাধীনতা...