Ami Bangladeshi

Ami Bangladeshi

Ami Bangladeshi

Independence Day

জাতীয় স্মৃতিসৌধ ও হিন্দু দেবতাদের রক্ত পিয়াস...

Independence day of Bangladesh
খবরের সাথে ছবিটা দেখে জমে উঠা কুয়াশা গুলো সহসাই কেটে গেল। নিজের কাছে নিজেকেই হাল্কা মনে হল। স্মৃতিসৌধের বেদিতে সন্মান শ্রদ্ধা অর্পণ করব আর তাতে নেতা-নেত্রীর ইগো প্রধান্য পাবে না এমনটা হলে বাংলাদেশের ইতিহাস হয়ত নতুন করে লিখতে হত। তা না ঘটায় অনেকের মত আমিও হাফ ছেড়ে বাঁচলাম। অসময়ের ইতিহাস ঘরে বাইরে বড্ড জটিলতার সৃষ্টি করে, যা শেষ পর্যন্ত রূপ নেয় রক্তারক্তিতে। বাংলাদেশ তার ৪০ বছরের ইতিহাস নিয়ে এমনিতেই কোমর পানিতে ডুবে আছে, নতুন করে কিছু লিখতে গেলে তা হয়ত আমাদের নিয়ে যেত গলাপানিতে এবং ডুবিয়ে রাখত আগামী ৮০ বছর । যা ঘটার তাই ঘটল, যা হওয়ার তাই হল; ওরা একে অন্যকে ধাওয়া করে রক্তারক্তির মাধ্যমে...

বিজয় দিবসের শুভেচ্ছা

Happy Independence Day - Bangladesh!
দেশে বিদেশে ছড়িয়ে থাকা amibangladeshi.org ’এর পাঠকদের জানাচ্ছি বিজয় দিবসের শুভেচ্ছা। যেখানে থাকুন সুস্থ থাকুন। ১৯৭১ সালে বিদেশি অপশক্তি ও তাদের স্থানীয় দোসরদের পরাজিত করে বিজয় ছিনিয়ে আনা সম্ভব হলেও দেশ সত্যিকার অর্থে কতটা স্বাধীন হয়েছে বিচারের ভার আপনাদের উপর ছেড়ে দিলাম। স্বাধীনতার অপর নাম যদি পিতা অথবা স্বামীর নামে দেশ দখল করার অবাধ লাইসেন্স হয়ে থাকে তাহলে নিশ্চয় আমরা স্বাধীন। এমন একটা স্বাধীনতার জন্যেই কি তাহলে দেশের লাখ লাখ মানুষ প্রাণ দিয়েছিল? পাকিস্তানী ২২ পরিবার ও তাদের সেবাদাস সেনা শাসকদের নাগপাশ হতে মুক্তি তথা জাতির আর্থ-সামাজিক সচ্ছলতা নিশ্চিত করাই ছিল স্বাধীনতার আসল উদ্দেশ্য। কতটা পূরণ হয়েছে সে উদ্দেশ্য? স্বাধীনতার পিতা ও ঘোষক নির্ধারণ করতেই চলে গেল প্রায় ৪০ বছর। অপ্রয়োজনীয় এ নির্ধারণ জাতিকে প্রতি পদক্ষেপে করেছে বিভক্ত, ঘরে ঘরে ছড়িয়ে দিয়েছে হিংসা, বিদ্বেষ আর রেশারেশির বিষাক্ত আগুন। সময়ের ব্যবধান পাকিস্তানী ২২ পরিবারকে সরিয়ে জাতির ঘাড়ে চাপিয়ে দিয়েছে শেখ ও জিয়া নামের দুটি পরিবার। রাষ্ট্রীয় ক্ষমতা দখলের মাধ্যমে দেশের ভৌগোলিক মালিকানা চিরস্থায়ী করার লড়াইয়ে নেমেছে বৈরী দুই প্রতিপক্ষ। বাড়ি দখল, বাড়ি উচ্ছেদ, নামকরণ, নাম বদল আর আধিপত্য কায়েমের নামে গোটা দেশজুড়ে প্রতিষ্ঠিত করেছে মধ্যযুগীয় বর্বরতা। শিক্ষা ব্যবস্থার কোমর ভেংগে জাতির গলায় ঝুলিয়ে দিয়েছে দাসত্বের স্থায়ী শৃংখল। বহুদলীয় গণতন্ত্রের নামে জাতির জরায়ুতে বপন করা হয়েছে এমন এক বীজ যার ফসল আজকের বিকলাঙ্গ শিক্ষিত সমাজ।

কতদিন চলবে এ অসুস্থ লড়াই? আর কত মুখ বুজে সহ্য করতে হবে দেশকে পারিবারিক সম্পত্তি বানানোর এ হীন লিপ্সা? স্বাধীনতার পুনর্মূল্যায়ন হোক এবারের বিজয় দিবসের দাবি। আসুন সুন্দর একটা দিনের স্বপ্ন দেখি।

আসুন দেশকে ব্যাক্তি ও পরিবারের উর্ধ্বে রাখার অভ্যাস করি। পুজা করতে চাইলে আসুন দেশকে পুজা করি।

এ স্বাধীনতা দিবসই হোক শেষ পরাধীনতা দিবস

Bangladesh Independence Day
৩৯ বছর! আমাদের স্বাধীনতা এখন আর শিশু নয় যার মুখে চুষনি এটে পুতু পুতু খেলা যাবে। ৩৯ বছর বয়স্ক এ দেশে ইতিমধ্যে খুন করা হয়েছে ২ জন প্রেসিডেন্টকে, হত্যা করে হয়েছে মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠকদের, ফাঁসিতে ঝুলানো হয়েছে হাজার হাজার মুক্তিযোদ্ধাকে, ৭১’এর চিহি¡ত ঘাতক মাওলানা মতিউর রহমান নিজামীর গাড়িতে উড়ানো হয়েছে মন্ত্রিত্বের পতাকা। পশ্চিম অংশের ২২ পরিবারের শোষণ হতে মুক্তি পাওয়ার জন্যে পাকিস্তানের পূর্ব অংশের মানুষ অস্ত্র তুলে নিয়েছিল ভৌগোলিক স্বাধীনতার পাশাপাশি রাজনৈতিক, অর্থনৈতিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক স্বাধীনতা অর্জনের লক্ষ্যে...

সবাইকে স্বাধীনতা দিবসের শুভেচ্ছা

Happy Independence Day! স্বাধীনতা দিবসের দিনে ’আমি বাংলাদেশী‘ পালন করছে তার ২য় জন্ম বার্ষিকী। চড়াই উৎরাই পার হয়ে এ পর্যন্ত আসতে আমাদের যারা সাহায্য, সহযোগীতা করেছেন তাদের সবাইকে অসংখ্য ধন্যবাদ। আমরা বিশ্বাস করি নিকট ভবিষ্যতে বাংলা ব্লগ দেশের গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ায় আরও বেশী কার্যকর ভূমিকা পালন করতে যাচ্ছে। ‘আমি বাংলাদেশী’ এ যাত্রায় সব সময় তার পাঠকদের সাথে থাকার প্রতিশ্রুতি দিচ্ছে।

স্বাধীনতা দিবসের শুভেচ্ছা রইল সবার জন্যে। ভাল থাকুন, সুস্থ থাকুন এবং দুর্নীতিমুক্ত বাংলাদেশ গড়ার দাবিতে সোচ্চার থাকুন।