Ami Bangladeshi

Ami Bangladeshi

Ami Bangladeshi

Blogs

গর্বাচভের সাথে কিছুক্ষন

gorbachev
দু’বছর আগের ঘটনা। বসন্তের কোন এক সকালে নিউ ইয়র্কের ল্যা গুয়ারডিয়া এয়ারপোর্টে বসে আছি আটলান্টাগামী ফ্লাইটের অপেক্ষায়। বৃষ্টি পরছে অঝোরে, চারদিক নিকশ কালো অন্ধকারে নিমজ্জিত । আবহাওয়ার কারণে ফ্লাইট দেরী হচ্ছে বারবার। আমাকে আটলান্টা হতে কলম্বিয়ার রাজধানী বগোটার ফ্লাইট ধরতে হবে, স্বভাবতই অস্থিরতা বাড়ছিল। এক পর্য্যায়ে বলা হল পরবর্তী ঘোষনা না দেয়া পর্য্যন্ত নিউ ইয়র্ক হতে কোন ফ্লাইটই ছেড়ে যাচ্ছেনা। মাথায় আকাশ ভেংগে পরল। কন্টিনেন্টাল এয়ারলাইন্সের বুথে গিয়ে সমস্যার কথা তুলে ধরলাম। জানতাম ওদের কিছু করার নেই, তবু কিছুক্ষন ঘ্যানর ঘ্যানর করলাম।

মাফিয়া কাহিনী

উনি প্রধানমন্ত্রী এবং এতিমদের শোকে শোকাভিভূত মহিয়সী এক নারী। সিদ্বান্ত নিলেন কিছু করার এবং ‘প্রধানমন্ত্রীর এতিম তহবিল‘ নামে সোনালী ব্যাংকের রমণা শাখায় ব্যাংক হিসাব খুলে আপোষ করেন এতিমদের সাথে। বিদেশ

দেশীয় অর্থনীতির একটা সপ্তাহ

শনিবার সকাল, সপ্তাহের শুরুঃ

যে কাহিনীর আদি নেই অন্ত নেই

রাজনীতির যখন ভরা বসন্ত চারদিক তখন আলোকিত হয় হরেক রকম বাহারী নেতার তেহারি খুশবুতে। অলিগলি রাজপথ প্লাবিত হয় নেতা, উপনেতা, পাতিনেতা, ছটাক নেতা, তোলা নেতা সহ হরেক রকম নেতাদের নর্তন-কুর্দন আর দাপটের মৈথুনে। এমনি এক ভরা বসন্তে চারদিক যখন জংলী আর জঙ্গলের প্রণয় লীলায় টালমাটাল, মা আমায় ডেকে পাঠালেন জরুরী তলবে। ঈশ্বর চন্দ্র বিদ্যাসাগরের মত না হোক অন্তত নিজের মত করে রাজধানী হতে এক ঘন্টার পথ ৫ ঘন্টায় পাড়ি দিয়

'কামিং টু আমেরিকা" এবং শেখ পরিবারের বিশেষ নিরাপত্তা

অনেকেই হয়ত এড্ডি মারফির ’কামিং টু আমেরিকা’ ছবিটা দেখে থাকবেন। যারা দেখেন্‌নি তাদের জন্যে সংক্ষেপে ছবিটার কাহিনী তুলে ধরছিঃ আফ্রিকার জামুন্ডা রাজ্যের রাজপুত্র আকিমের বিয়ে ঠিক হয় এমন একজনের সাথে যার চেহ

প্রথম আলো এবং আমাদের শুশিল সমাজ

প্রথম আলো বাংলাদেশের অগুনিত দৈনিক পত্রিকার একটি। এই পত্রিকাটি সময় সময় দেশের রাঘব বোয়াল চোরদের চুরিপর্ব তুলে ধরে সাংবাদিক হিসাবে তাদের দায়িত্ব পালন করে থাকে। স্বভাবতই এ ধরনের প্রকাশনা দলীয় নূরা পাগলাদে