Ami Bangladeshi

Ami Bangladeshi

Ami Bangladeshi

Blogs

বিচারের লম্বা হাত

Rojon
রাজন ও রাকিব হত্যাকাণ্ডের এক্সপ্রেস ট্রায়াল ও তার রায় দেশীয় বিচার ব্যবস্থাকে আলোকিত করার চাইতে বরং এর অন্ধকার দিকটাই ফুটিয়ে তোলে বেশি ( জনমত ও দাবির মুখে ত্বরান্বিত বিচার)। আমাদের বিচারের গতি প্রকৃতির অনেক ফ্যাক্টর। রাজনৈতিক পরিচয় ও নগদ নারায়ণ এর অন্যতম। হিসাব কষলে দেখা যাবে নিম্ন আদালতের বিচারক ও দুর্নীতির ভারে পচে যাওয়া পুলিশ বাহিনীর মাঝে আসলে মৌলিক কোন তফাৎ নেই...

রাশিয়ার পথেঘাটে - ২

Russia
অবিরাম তুষারপাত চলছিল সে বছর। জানুয়ারি ফেব্রুয়ারির দাপট মে মাসেও কমার লক্ষণ দেখা গেলনা। বরফ আর বরফ। ধরণীকে মনে হল অমল ধবল পাল তোলা বিশাল একটা জাহাজ। ক্লান্ত, থেমে আছে কোন এক অচেনা বন্দরে। ডর্ম হতে ভার্সিটি ২০ মিনিটের পথ। তাও পায়ে হেঁটে। চাইলে ট্রাম ধরা যায়...

রাশিয়ার পথেঘাটে

ইউরি ছিল আমার প্রথম রুশ বন্ধু। ছয় ফুট লম্বা আর ৩০০ পাউন্ড ওজনের একজন মানুষ এত হাসিখুশি হতে পারে না দেখলে বিশ্বাস করা কঠিন। প্রথম দিনের ক্লাসে বিদেশিদের দেখে রুশ ছাত্রদের প্রায় সবাই কেমন ভড়কে গেল। কোথা হতে শুরু করতে হবে কেউ আন্দাজ করতে পারছিলনা। ইউরি ছিল এর ব্যতিক্রম...

'ভিক্টিম অব ইনোসেন্স'

জাতীয় দলের ক্রিকেটার লিটন দাসের 'ভিক্টিম অব ইনোসেন্স' পর্বটা বেশ আগ্রহ নিয়ে পড়লাম। এ মুহূর্তে দেশে তেমন কোন সমস্যা নেই, তাই সামাজিক মাধ্যমকে লাগছে অনেকটা এতিমখানার মত। লিটন দাসের মত মাইনর ফ্যাক্টরের স্ট্যাটাস পড়ার এটাই বোধহয় উপযুক্ত সময়...

শূন্য কলস বাজে বেশী...

বহির্বিশ্বে তাদের পরিচয় পরাশক্তির ভারসাম্যের প্রতীক হিসাবে। তৃতীয় বিশ্বের কাছে মার্কিন 'সাম্রাজ্যবাদ' ঠেকানোর সাক্ষাত যম। সময়টা আসলেই সমাজতান্ত্রিক সমাজ ব্যবস্থার সোনালী যুগ ছিল। তেমনি একটা সময়ের কাহিনী। আমার মত অনেককেই তৃতীয় বিশ্ব হতে কুড়িয়ে আনছে সোভিয়েত দেশে। উদ্দেশ্য বহুমুখী। সরকারী ভাবে বলা হচ্ছে আন্তঃ-রাষ্ট্রীয় সম্পর্ক শক্ত করা। যা বলা হচ্ছেনা তা হল, সমাজতন্ত্রের সৈনিক হিসাবে মাঠ পর্যায়ে দীক্

মধ্যপ্রাচ্য ও আজকের বাস্তবতা...

সিরিয়া ক্রাইসিস শুরু হয়েছে কেবল। চারদিকে ধ্বংসের উৎসব। প্রচার মাধ্যমে ফলাও করে প্রচার হচ্ছে আসাদ ডাইনাস্টির সর্বশেষ আসাদের নির্মমতা। মধ্যপ্রাচ্যের দেশ গুলোর সাথে যাদের পরিচয় আছে তাদের জানা আছে পৃথিবীর এ অঞ্চলে কোন না কোন ভাবে এক ব্যক্তি অথবা এক পরিবারের শাসন চলছে এবং তা যুগ যুগ ধরে। জনগণও খাপ খাইয়ে নিয়েছে (!) একনায়কতন্ত্র ও রাজতন্ত্রের সাথে। গোত্র ভিত্তিক অসম শাসনের যাঁতাকলে যেসব গোত্র নিষ্পেষিত হ

সময় গেলে সাধন হবেনা...

 photo 1_zpscp404a2g.jpg

পাঠক,

হে জননী জন্মভূমি, যুগে যুগে এসব সন্তানদের জন্ম দিয়ে তুমি ধন্য হও!!!

আমাদের ক্রিকেট তখনো আন্তর্জাতিক লেভেলে প্রবেশ করেনি। অনেকের মত আমিও ফুটবল নিয়ে মজে থাকি। মোহামেডান আবাহনী ম্যাচ নিয়ে উত্তেজিত হই। খেলা শেষে আনন্দ উচ্ছ্বাস মেতে উঠি অথবা মনের কষ্ট মনে চেপে নতুন দিনের অপেক্ষায় থাকি। মফস্বল হতে ঢাকায় এসে প্রথম যে কাজটা নিয়মিত করতে শুরু করি তা হল মাঠে গিয়ে ফুটবল দেখা। কি রৌদ্র, কি বৃষ্টি, কি ঝড়...কি তুফান কোন কিছু আটকাতে পারেনি ৩-৪ ঘণ্টার এই বিনোদন। কালের পরিক্রমায় ডি