Ami Bangladeshi

Ami Bangladeshi

Ami Bangladeshi

শেষ রাইতের গপ্পো

Sheikh Hasina & Khaleda Zia
বিস্ময়ে হতবাক হইয়া গেল সবাই । কথা ফুটিলনা কাহারো মুখে। স্তব্ধতার চাদরে ঢাকিয়া গেল ২০ কোটি মানুষের মুখ। এমনটা কি করিয়া সম্ভব ভাবিয়া কুল পাইল না কেহ! একই দিনে একই সময়ে দুইজনের স্বাভাবিক মৃত্যু, ডাক্তার দুরে থাক গণক হাওলাদার পর্যন্ত ব্যর্থ হইল যথার্ত কারণ ব্যাখ্যা করিতে। বিশ্ব মিডিয়া ইহাকে সহস্রাব্দের সেরা আশ্চর্য ঘটনা বলিয়া আখ্যায়িত করিল।

একজন ধানমন্ডিতে, অন্যজন গুলশানে। আর দশটা স্বাভাবিক দিনের মত দুই জন রাজনীতি করিলেন। নিজ নিজ পিতা আর স্বামীর নামে ক্ষমতার বাজারে বিনিয়োগ করিলেন এবং দিনান্তে ছেলেমেয়ে নায়-নাতির সহিত ভিডিও কনফারেন্স করিয়া ঘুমাইতে গেলেন। সকাল গড়াইয়া দুপুর হইল, টেবিলে নাস্তা ঠান্ডা হইল কিন্তু দুইজনের একজনও শয়নকক্ষ হইতে বাহির হইল না। বাড়ির আয়া বুয়ারা অবাক হইলেও ঘুম ভাঙ্গাইতে সাহষ করিল না। ১টার দিকে ব্যাক্তিগত সচিব আসিয়া আবিষ্কার করিল মৃতদেহ। উভয় ক্যাম্প হইতে যুগপৎ প্রকাশিত হইল সংবাদটা, উনারা আর নাই। আলোচনা, সমালোচনা, গবেষনা, অতীতবানি আর ভবিষ্যদ্বাণীর জোয়ারে ভাসিয়া গেল গোটা দেশ। এক পক্ষ কহিল ইহা জামাতিদের কাজ, অন্য পক্ষ বলিল দাদাদের ষড়যন্ত্র। ডানপন্থীরা বলিল আল্লার মাল আল্লায় নিয়া গেছে, বামপন্থীদের ধারণা নেত্রীদের হত্যা করা হইয়াছে এবং ইহাতে জড়িত আছেন আমরিকার প্রেসিডেন্ট সারাহ পালিন। শোকের সাগরে ভাসিতে গিয়া এক সময় জনগণের হুস হইল, আরে, তাহাদের তো নতুন নেতা, প্রধানমন্ত্রী আর বিরোধী দলীয় নেত্রী দরকার।

ঘটনার শুরু রংপুর হইতে। স্থানীয় যুবলীগের ৩১ জন নেতা অনশনের হুমকি দিল। দাবি একটাই, আমরিকা প্রবাসি সজিব ওয়াজেদ জয় ভাইয়াকে ফিরাইয়া আনিয়া প্রধানমন্ত্রীর আসনে বসাইতে হইবে। গোপালগঞ্জের ছাত্রলীগ নেতারা এক ধাপ আগাইয়া আত্মহননের হুমকি দিল। অরাজকতায় আক্রান্ত হইল গোটা দেশ। শেখ রেহানা লন্ডন হইতে পুত্রবধু পেপ্পি কেভিমিয়ামি সহ দেশে ফিরিলেন জরুরী ভিত্তিতে। কেহ কেহ ২০ কোটি মানুষের দায়িত্ব শেখ বংশের সর্বশেষ সংযোজন শেখ সুফিয়ার হাতে সঁপিবার দাবি জানাইল। অনেকে এই নাবালিকার চোখে প্রয়াত নেত্রীর ছায়া দেখিতে পাইয়া আশায় বুক বাধিতে শুরু করিল। একই দাবির স্বপক্ষে জনমত তৈরী করিবার দায়িত্ব নিল বিশিষ্ট লেখক আবদুল গাফফার চৌধুরী। শুনিয়া পেপ্পি ক্রোধান্নিত হইল এবং স্বামীকে পরবর্তী ফ্লাইটে ঢাকা আসিবার তাগাদা দিল।

অন্য ক্যাম্পে এই লইয়া সমস্যা একটু কম হইল। বগুড়ার জনগণ ইতিমধ্যে তোরণ তৈরী করিতে শুরু করিয়া দিল। সুপ্রিয় তারেক ভাইয়া দেশের মাটিতে পা দিয়া প্রথমেই যেন বগুড়ার মাটি ধন্য করেন দাবি জানাইয়া হরতাল করিল, মোড়ে মোড়ে মানব বন্ধন করিল। সমস্যা হইল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কতিপয় শিক্ষক আর দলের দুই একজন ব্যারিস্টারদের লইয়া। তাহারা দলের প্রধান ও বিরোধী দলের নেতা হিসাবে আরাফাত রহমান ককোর নাম প্রস্তাব করিল। দলের অবসরপ্রাপ্ত দুই একজন জেনারেল আকারে ইঙ্গিতে জিয়া বংশের নতুন প্রজন্ম জামাইমা জিয়ার নাম প্রস্তাব করিল। এই নাবালিকার চোখেও না-কি তাহারা প্রয়াত নেত্রীর ছায়া দেখিতে পাইয়াছেন।

জরুরী ভিত্তিতে ঈশ্বর সভা তলব করিলেন। হাবিল-কাবিল, জিবরাইল -আজ্রাইল সহ সবাই আসিল। দেখিয়া ঈশ্বর মুচকি হাসিলেন। জরুরী কিছু সিদ্ধান্ত শেষে তিনি মাটির দুনিয়ার দিকে আংগুলি হেলন করিলেন এবং বলিলেন, ’হে অধীনস্তগন, আমার সৃষ্টির সবচাইতে নিকৃস্টদের দেখিতে চাহিলে তোমরা নীচের দিকে তাকাও। তাহাদের সংখ্যা ২০ কোটি। দাসত্বের পিঞ্জিরায় বন্দী থাকিলে প্রিয় আদমগনের অবস্থা কি হইতে পারে তাহার নমুনা দেখিতে চাহিলে নজর ফেরাও দেশটার দিকে।’ অধীনস্তরা চোখ ফিরাইল। গোপালগঞ্জ দেখিল, বগুড়া দেখিল এবং হো হো করিয়া হাসিয়া উঠিল ।

ভেঙ্গে গেল সকালের ঘুমটা। বিরামহীন তুষারপাতে হচ্ছে কদিন ধরে। রাস্তাঘাট ডুবে যাচ্ছে বরফের আচ্ছাদনে। আজ রোববার, কাজে যেতে হবেনা ভাবতে মনটা হাল্কা হয়ে গেল। সান্তা ফে রুটের প্রথম ট্রেনটাও কর্কশ সুরে ডেকে উঠল একই সময়ে। এত সকালে বন্ধু মোর্শেদের ফোন পেয়ে কিছুটা বিরক্ত হলাম। কারণ জানতে চাইলে ইলেকট্রনিক মিডিয়ায় চোখ বুলাতে অনুরোধ করল। খুব একটা অবাক হলাম না খবরটা পড়ে, ‘১৫ হাজার কোটি টাকা লুটে নিয়েছেন আওয়ামী-বিএনপির ১০-১৫ রাজনৈতিক ব্যবসায়ী‘। স্বপ্নে দেখা ঈশ্বরকে মনে করার চেষ্টা করলাম। এ মুহূর্তে তাকে ছাড়া আর কাউকে দায়ি করার কারণ খুঁজে পেলাম না।

Comments

এমপি বদি’র বিরুদ্ধে মামলার নির্দেশ ইসি’র

মঙ্গলবার, ০১ ফেব্রুয়ারী ২০১১

নির্বাচন কমিশনের ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটকে মারধর করার অপরাধে কক্সবাজার-৪ আসনের এমপি আবদুর রহমান বদি’র বিরুদ্ধে মামলা করার নির্দেশ দিয়েছে নির্বাচন কমিশন। গতকাল অনুষ্ঠিত কমিশন বৈঠক থেকে মারধরের শিকার ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যজিস্ট্রেট আবদুর রহমানকে মামলা করার নির্দেশনা দেয়া হয়। বিষয়টি স্বীকার করে নির্বাচন কমিশনার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) এম সাখওয়াত হোসেন মানবজমিনকে বলেন, ভ্রাম্যমাণ আদালতের ম্যাজিস্ট্রেট আবদুর রহমানকে মামলা করতে বলা হয়েছে। কারণ মামলা না করলে এ ঘটনার কোন প্রকৃত প্রমাণ থাকবে না। ভবিষ্যতে কেউ যাতে এ ধরনের ন্যক্কারজনক ঘটনা ঘটানোর সাহস না পায় সেটা নিশ্চিত করতেও এ ধরনের পদক্ষেপ নেয়ার প্রয়োজন। গত ১৫ই জানুয়ারি কক্সবাজারের টেকনাফে সন্ধ্যার পর নির্বাচনী আচরণবিধি ভঙ্গ করে সংসদ সদস্য আবদুর রহমান বদি তার চাচা টেকনাফ পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র প্রার্থী মোহাম্মদ ইসলামের জনসভা করেন। এ সময় নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আবদুর রহমান ঘটনাস্থলে গেলে সরকার দলীয় সংসদ সদস্য আবদুর রহমান বদি তাকে মারধর করেন। টেকনাফ পৌর এলাকার ৭ নম্বর ওয়ার্ডের চৌধুরীপাড়ায় ওয়াপদা মাঠে নির্বাচনী জনসভা করার খবর পেয়ে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আবদুর রহমান ও টেকনাফ উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা জয়নাল আবেদীন সন্ধ্যার পর ঘটনাস্থলে গিয়ে জনসভার ছবি তোলার চেষ্টা করেন। এটা জানতে পেরে সংসদ সদস্য আবদুর রহমান বদি ও তার লোকজন ম্যাজিস্ট্রেট আবদুর রহমানকে ধরে এনে মাঠেই বেধড়ক পেটান। এ বিষয়ে গত ২৪শে জানুয়ারি উপ ও ১২ পৌর নির্বাচন নিয়ে আইন-শৃঙ্খলা বৈঠকে নির্বাচন কমিশনার সাখাওয়াত হোসেন ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানান। বলেন, কিছু প্রভাবশালী ব্যক্তি নির্বাচনকে প্রভাবিত করার চেষ্টা করছে। তাদের কারণে নির্বাচনে কিছু সমস্যা হয়েছে। তিনি বলেন, পৌর নির্বাচনে কিছু ঘটনা ঘটার পরও কোন ওসি, এমনকি কোন পুলিশ সদস্যকে পর্যন্ত দায়িত্ব অবহেলার কারণে সাসপেন্ড করা হয়নি। অবস্থা দেখে মনে হচ্ছে রাইফেল ছিনতাই হলেও পুলিশ কিছু বলবে না। পুলিশের সামনে টেকনাফে ম্যাজিস্ট্রেটের গায়ে হাত তোলা হয়েছে- এটা মেনে নেয়া যায় না। পুলিশ, র‌্যাব সদস্যরা থাকতে এ ধরনের ঘটনা কিভাবে ঘটে? সরকারের উচ্চপর্যায়ের সুস্পষ্ট অবস্থান জানার পরও মাঠে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী তৎপর হচ্ছে না। টেকনাফে নির্বাচন এলেই প্রতিবার সরকারি দায়িত্ব পালনকারী কর্মকর্তাদের গায়ে হাত তোলা হয়। জানিনা আপনারা এটা সহ্য করেন কিভাবে? এ প্রতিক্রিয়ার জবাবে স্বরাষ্ট্র সচিব আবদুস সোবহান শিকদার ও পুলিশের আইজি হাসান মাহমুদ খন্দকার দুঃখ প্রকাশ করেন। স্বরাষ্ট্র সচিব বলেন, ব্যালট পেপার ছিনতাই হয়েছে অথচ কোন পুলিশ সদস্য আহত হয়নি- এটা মেনে নেয়া যায় না। নির্বাচনের দিন সরকার দলীয় বলে কারও কোন পরিচয় থাকে না। আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের চোখে সবাই সমান।
http://www.mzamin.com/index.php?option=com_content&view=article&id=1954:...

Post new comment

  • Allowed HTML tags: <a> <em> <strong> <cite> <code><b><p><h1><h2><h3><ul> <ol> <li> <dl> <dt> <dd><img><object><param><embed>
  • Web page addresses and e-mail addresses turn into links automatically.
  • Lines and paragraphs break automatically.

More information about formatting options

Image CAPTCHA
Enter the characters shown in the image.
Write in Bangla